১৫ রমজান আকাশে বিকট আওয়াজের হাদিসটি ‘জাল’

কে’য়া’ম’তে’র আ’গে প্র’তি’শ্রু’ত ই’মা’ম মা’হ’দি’র আ’বি”র্ভা’ব স’ত্য। রা’সু’লু’ল্লা’হ (স.)-এ’র হা’দি’সে’র আ’লো’কে আ’হ’লে সু’ন্না’ত ও’য়া’ল জা’মা’তে’র আ’কি’দা-বি’শ্বা’স এ’টি। ই’মা’ম মা’হ’দি স’ম্প’র্কে অ’নে’ক স’হি’হ হা’দি’স র’য়ে’ছে। তাঁ’র আ’ত্ম’প্রকা’শে’র আ’লা’ম’ত সং’ক্রা’ন্ত

হা’দি’স’ও র’য়ে’ছে। এ’র ম’ধ্যে কি’ছু রে’ও’য়া’য়ে’ত জা’ল। ই’দা’নীং তে’ম’ন’ই এ’ক জা’ল হা’দি’স নি’য়ে অ’ন’লা’ই’নে না’না গু’ঞ্জ’ন চ’ল’ছে।হা’দি’স’টি হ’লো— রা’সু’লু’ল্লা’হ (স.) ব’লে’ছে’ন, ‘কো’নো এ’ক র’ম’জা’নে আ’ও’য়া’জ আ’স’বে’। সা’হা’বি’রা জি’জ্ঞে’স ক’র’লে’ন,

‘হে আ’ল্লা’হর রা’সু’ল! র’ম’জা”নের শু’রু’তে না’কি মা’ঝা’মা’ঝি স’ম’য়ে? না’কি শে’ষ দি’কে?’ ন’বী’জি (স.) ব’ল’লে’ন, ‘না, ব’রং র’ম’জা’নে’র মা’ঝা’মা’ঝি স’ম’য়ে। ঠি’ক ম’ধ্য র’ম’জা’নে’র রা’তে। শু’ক্র’বা’র রা’তে আ’কা’শ থে’কে একটি শব্দ আসবে। সেই শব্দের

প্রচণ্ডতায় ৭০ হাজার মানুষ বেহুশ হয়ে যাবে আর ৭০ হাজার বধির হয়ে যাবে…।’ (আল ‍মুজামুল কাবির লিত তবারানি: ১৮/৩৩২/৮৫৩)উল্লেখিত বর্ণনাটি সহিহ নয়। বরং বিজ্ঞ হাদিস বিশারদরা এটিকে বাতিল ও বানোয়াট হাদিস বলে চিহ্নিত

করেছেন। এই হাদিস সম্পর্কে শাইখ আলবানি (রহ) বলেন, হাদিসটি موضوع তথা বানোয়াট। ইবনুল জাওজি তার মাউজুআত তথা বানোয়াট হাদিস সংকলন গ্রন্থে হাদিসটি উল্লেখ করেছেন। (৩/১৯১) ইমাম জাহাবি বলেন, হাদিসটি

বাতিল। (তারতিবুল মাউজুআত: ২৭৮)হাইসামি বলেন, এই হাদিসের বর্ণনা সূত্রে আব্দুল ওহাব ইবনুজ জাহহাক নামক একজন বর্ণনাকারী রয়েছে যে মুহাদ্দিসিনদের দৃষ্টিতে মাতরুক বা পরিত্যাজ্য। (মাজমাউজ জাওয়ায়েদ: ৭/৩১৩)

ইমাম ইবনুল কাইয়িম বলেন, ‘অগ্রিম তারিখ নির্ধারণ করে বিভিন্ন ঘটনার বেশ কিছু হাদিস পাওয়া যায়। সেগুলো সহিহ নয়।’ এর মধ্যে একটি হলো—‘অর্ধ রমজানের জুমার রাতে একটি আওয়াজ হবে। এতে ৭০ হাজার মানুষ বেহুশ হয়ে

পড়ে যাবে.. ৭০ হাজার মানুষ বোবা হয়ে যাবে..।’ (আল মানারুল মুনিফ: ৯৬ পৃষ্ঠা)আমাদের কর্তব্য হলো— আল্লাহর রাসুল (স.)-এর হাদিস বর্ণনার ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করা এবং মিথ্যা, বানোয়াট বা অশুদ্ধ সূত্রে

বর্ণিত হাদিস প্রচার থেকে সাবধান হওয়া। কেননা বানোয়াট, জাল-জয়িফ হাদিস দিয়ে ইসলামের লাভ-ক্ষতি কিছুই হয় না, বরং নিজের বড় ক্ষতি হয়। হাদিসের ভাষ্য অনুযায়ী, যে ব্যক্তি জেনেশুনে রাসুল (স.)-এর নামে মিথ্যা হাদিস বর্ণনা

করে তার পরিণাম হয় জাহান্নাম। (বুখারি, আস-সহিহ ১/৫২; ইবনু হাজার, ফাতহুল বারি ১/১৯৯, মুসলিম, আস-সহিহ: ১/৯)সুতরাং দলিলযোগ্য নয় এমন বর্ণনা প্রচার করা থেকে সাবধান থাকতে হবে। কেয়ামতের

আলামত সম্বলিত অনেক সহিহ হাদিস আছে। যথাসম্ভব ওসব হাদিস নিয়ে আলোচনা করা প্রয়োজন। আল্লাহ তাআলা আমাদের ক্ষমা করুন, সবসময় হক কথা বলার তাওফিক দান করুন। আমিন।