১২ বছরের রেকর্ড ভেঙ্গে বাংলাদেশি হিসেবে,অভিষেকে এই রেকর্ড ছাড়ালেন তৌহিদ হৃদয়!!

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে অভিষেকটা ভালোই হয়েছে তৌহিদ হৃদয়ের। মনে রাখার মতো এক সিরিজে অভিষেক হয়েছে তার। ইংল্যান্ডকে প্রথমবার হোয়াইটওয়াশ করা দলের অন্যতম সদস্য হতে পেরেছেন। ব্যক্তিগত তিনটি ইনিংসে কোনো

মাইলফলকে যেতে পারেননি। তবে তার ইনিংসগুলো কার্যকরী ছিল।অভিষেকে ব্যক্তিগত সাফল্য এবার ধরা দিলো সিলেটে। ক্যারিয়ারের প্রথম একদিনের ম্যাচ খেলতে নেমে পেয়েছেন অর্ধ-শতক। বাংলাদেশি কোনো ক্রিকেটারের ওয়ানডে

অভিষেকে যা মাত্র তৃতীয়বার ঘটলো। তার আগে একদিনের ক্রিকেটে অভিষেকে হাফ-সেঞ্চুরি করেছিলেন ফরহাদ রেজা এবং নাসির হোসেন।এক যুগেরও বেশি সময় পর বাংলাদেশি হিসেবে অভিষেকে অর্ধ-শতক পেলেন হৃদয়। তার

আগে নাসির হোসেন ২০১১ সালে এই রেকর্ড গড়েছিলেন। জিম্বাবুয়ের হারারে ক্রিকেট গ্রাউন্ডে তিন ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে অভিষেকে ৯২ বলে ৬৩ রান করেছিলেন এই অলরাউন্ডার।
এর আগে ২০০৬ সালে প্রথমবার একদিনের ক্রিকেটে

প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ওই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে অভিষেকে ফিফটির রেকর্ড গড়েছিলেন ফরহাদ রেজা। সেদিন ৫৭ বলে কাটায় কাটায় ফিফটি পূর্ণ করে আউট হয়েছিলেন রেজা। তবে মজার ব্যাপার হচ্ছে নাসির এবং রেজা দুজনের অভিষেক

ফিফটি একই দলের বিপেক্ষে, একই মাঠে।সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আজ পাঁচে ব্যাট করতে নামেন হৃদয়। ইনিংসের ৩৬-তম ওভারের প্রথম বলে এক রান নিয়ে ফিফটি পূর্ণ করেন তিনি। আর তাতেই রেকর্ড বুকে নাম উঠে

যায় বগুড়ায় জন্ম নেওয়া এই ক্রিকেটারের। ফিফটি করার পর আত্মবিশ্বাস যেন আরও বেড়ে যায় হৃদয়ের। ওই ওভারের পঞ্চম বলে দারুণ একটি বাউন্ডারি হাঁকিয়েছেন তিনি।এই রিপোর্ট লেখার সময় হৃদয় ৬৮ বল খেলে ৬৫ রানে অপরাজিত আছেন। তার এই ইনিংসে বাউন্ডারি হাঁকিয়েছেন ছয়টি। তিনিই এখন বাংলাদেশি ব্যাটারদের মধ্যে অভিষেকে সর্বোচ্চ রান করা ক্রিকেটার।