স্বামী পরকীয়া করায় রাগে ১৮ দিনের সদ্যোজাতের গলা টিপে মারলেন মা!

স্বামী পরকীয়ায় জড়িয়েছে তাই এ নিয়ে কয়েক দিন ধরে অশান্তি চলছিল দম্পতির। পরে এ নিয়ে অশান্তির মাত্রা চরমে পৌঁছলে রেগে গিয়ে নিজের ১৮ দিনের সন্তানকে গলা টিপে খুন করার অভিযোগ উঠেছে মায়ের বিরুদ্ধে। এরপর ওই

মাও আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। ভারতের বীরভূমের শান্তিনিকেতনে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ জানায়, বছর দুই আগে বিয়ে হয় সোনাই টুডু এবং স্ত্রী মালতি টুডুর। কিছু দিন আগে দম্পতির একটি সন্তান হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় ১৮ দিনের সেই

শিশুকে নিজের ঘরে গলা টিপে মেরে ওই বধূ আত্মহত্যার চেষ্টা করেন বলে অভিযোগ। প্রতিবেশীর চেষ্টায় প্রাণে বাঁচে ওই বধূ। স্থানীয়রা জানায়, বিয়ের আগে থেকেই এক মহিলার সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন সোনাই। বিয়ের পরও সেই সম্পর্কে

রয়েছেন তিনি। এ নিয়ে স্ত্রীর সঙ্গে নিত্যদিন অশান্তি হত। সোনাই এবং মালতির মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া হত। এমনকি সব সময় স্ত্রীর মৃত্যুকামনা করতেন সোনাই। ঝগড়ার সময় স্ত্রীকে প্রাণে মেরে ফেলারও হুমকি দিতেন। শনিবার মালতির বাড়িতে

চিৎকার-চেঁচামেচি শুনে দৌড়ে এসেছিলেন প্রতিবেশীরা। তারা এসে দেখেন দুধের শিশুটির নিথর দেহ পড়ে রয়েছে আর তার মা গলায় দড়ি দিয়ে ঝুলছেন। তড়িঘড়ি তাকে উদ্ধার করা হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে শান্তিনিকেতন থানার

পুলিশ। ইতিমধ্যে শিশুটির দেহ ময়নাতদন্তের জন্য বোলপুর মহকুমা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া শিশুটির মা, দাদু-সহ ওই পরিবারের মোট ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ। তবে মালতির স্বামী সোনাই পলাতক।

এই ঘটনা প্রসঙ্গে বীরভূম জেলার পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘‘শান্তিনিকেতন থানার পুলিশ রাতেই ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করে। আমরা বিষয়টি তদন্ত করে দেখছি। পারিবারিক অশান্তি না কি অন্য কোনো বিষয় রয়েছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।