সিনিয়রদের বসিয়ে দলে যাদেরকে সুযোগ দেওয়ার ইঙ্গিত দিলেন পাপন

এ সিরিজের পারফরম্যান্স, ফল ও অর্জন-প্রাপ্তি যাই হোক না কেন, ইংল্যান্ডের সাথে ঘরের মাঠে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের মধ্য দিয়ে শুরু হয়ে গেলো টিম বাংলাদেশের বিশ্বকাপ প্রস্তুতি।আশার কথা, মাঝে নিজেকে হারিয়ে ফেলা

মুশফিকুর রহিম আবার নিজেকে খুঁজে পেয়েছেন। সোমবার দলের সংকটে ৭০ রানের এক আত্মবিশ্বাসী ও দায়িত্বপূর্ণ ইনিংস খেলেছেন মুশফিক।আরেক সিনিয়র ও অভিজ্ঞ পারফরমার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ অবশ্য নিজেকে মেলে ধরতে

পারেননি। আগের দুই ম্যাচে যথাক্রমে ৩১ ও ৩২ রানের দুটি ইনিংস খেললেও তৃতীয় ওয়ানডেতে দলের প্রয়োজনে কিছুই করতে পারেননি রিয়াদ। মাত্র ৮ রানে ফিরে গেছেন সাজঘরে।
মোদ্দা কথা, গুরুত্বপূর্ণ সময়ে রিয়াদ কার্যকর ভূমিকা

নিতে পারেননি। কারো কারো মত, সিরিজ যেহেতু হাতছাড়া হয়ে গিয়েছিল, শেষ ম্যাচে রিয়াদকে বসিয়ে তরুণ তৌহিদ হৃদয়কে পরখ করে দেখা যেতো। সেটা হয়নি।তবে হতাশ হওয়ার কিছু নেই। বিশ্বকাপের আগে তৌহিদ হৃদয়, ইয়াসির

আলী রাব্বিসহ তরুণদের যাচাই বাছাই করা হবে। তৃতীয় ওয়ানডে শেষে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এমনটাই জানিয়ে দিলেন। তিনি জানিয়েছেন, সামনে আয়ারল্যান্ড ও অন্য আরেক সিরিজে দলের একাধিক সিনিয়র পারফরমারকে

বিশ্রাম দেয়া হতে পারে।বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘আমাদের এটাই যে বিশ্বকাপ স্কোয়াড হবে, সেটা তো আমরা জানি না। ধরেন এটাই বিশ্বকাপ স্কোয়াড হলো, একটা খেলোয়াড় চোট পেলো; সেটা ওপেনার কিংবা মিডল অর্ডার হতে পারে

বা লোয়ার অর্ডার হতে পারে, কে খেলবে তার জায়গায়? তাহলে ওই খেলোয়াড়কে তো দেখতে হবে।’পাপন যোগ করেন, ‘কোচ কি নতুন কাউকে বিশ্বকাপ খেলতে নামিয়ে দেবে? সামনে আমাদের দুটো সিরিজ আছে বিশ্বকাপ ও এশিয়া

কাপের আগে। সেখানে আমরা দু‘একজনকে বিশ্রাম দিতে পারি। বিশ্রাম দিয়ে দেখার জন্য, এর মানে এই না যে সে বাদ পড়ে গেছে। অপশন কে আছে, এটা দেখার জন্য।’বিসিবি সভাপতির শেষ কথাটি বেশ তাৎপর্যপূর্ণ। তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, ‘এশিয়া কাপে যে দলটা ঘোষণা করা হবে, সেটাই হবে বিশ্বকাপ স্কোয়াড।’