সবাই হতভম্ব, দুবাই থেকে ফিরেই, অনুশীলন মাঠে সাকিবের ভেলকি

সাকিব আর বিতর্ক যেন এক সুতোয় গাঁথা । মাঠের ক্রিকেট ছাপিয়ে নিত্য নতুন নানা খবরে সাকিবকে নিয়ে শিরোনাম হরহামেশাই হয়। তবে ২২ গজের সাকিব ক্রিকেট মাঠে বরাবরাই আলাদা।এবার মাঠে ফিরেই ডান হাতে ব্যাট চালিয়ে সাকিব

জানান দিলেন, সব কিছুতে সমান অভ্যস্ত তিনি। বিতর্ক আর ক্রিকেট দুটো এক সাথে সামলাতে সাকিবের চেয়ে সপ্রতিভ আর কে!সম্প্রতি দুবাইয়ে আলোচিত এক জুয়েলারি শপ উদ্বোধন করতে গিয়ে বিতর্কের জড়ান সাকিব। বিতর্কের সে

রেশ এখনও থামেনি দেশের গণমাধ্যমে। দুবাই ফেরত সাকিব ঢাকায় ফিরে যােগ দিয়েছেন সিলেটে দলীয় অনুশীলনে।সব বিতর্ক আর আলোচনার মাঝখানে মাঠের ক্রিকেটে সাকিবের নিবেদন প্রশ্নাতীত। এতো সব বিতর্ক আর সমালোচনা

যেনো সাকিবকে আঁচও করতে পারেনি। দলীয় অনুশীলনে ‘সিরিয়াস’ সাকিবকে দেখে তাই মনে হবার কথা।শুক্রবার মাঠে এসে শুরুতে কিছুক্ষণ হাঁটাহাঁটি করে গা গরম করেছেন সাকিব। হালকা রান আপে নেটে বল করেছেন লিটন দাসকে। খুব

বেশিক্ষণ এই অবস্থায় সাকিব আর সময়ক্ষেপন করেননি। নিজের ব্যাটিং প্রস্তুতিসারতে এরপর সাকিব ছুটে গেছেন ড্রেসিং রুমের দিকে। ব্যাট-প্যাড পরে এসে সাকিব পা রাখলেন সেন্টার উইকেটের অন্দরে। সেখানে শুরুর একটি বল খেলেন ডান হাতেও।

সাকিবের এই প্রচেষ্টার কারণ পরিষ্কার দুই দিকে ব্যাট ঘুরাতে আরও সাবলীল হতে চেষ্টা। স্ট্রাইক রোটেট করে রান বের করতে সাকিবের জুড়ি নেই দলে। অনেক সময় সোজা ব্যাটে চাপ তৈরি হয় রান করতে।ডট না দিয়ে প্রতিপক্ষের কাছ থেকে সহজে

রান বের করা যায় রিভার্স সুইপে। সাকিব অনুশীলনে সেই চেষ্টাই করেছেন বোধহয়।পরে যখন নেটে সাকিব নেটে এসেছেন, কোনো বোলারকে আর মোকাবিলা খেলেননি। থ্রোয়ারের করা বলে সুইপ আর রিভার্স সুইপই করে গেছেন ডান হাতি ব্যাটারের

মতন। সাকিবের এমন পরীক্ষা নিরীক্ষা দেখে জানতে চেয়েছিলেন নাজমুল হোসেন শান্ত।পাশ থেকে জিজ্ঞেসও করলেন শান্ত, ‘ভাই, আপনি কি রিভার্স সুইপে ছক্কা মারতে চাচ্ছেন?’ তখন সাকিব জবাব দিলেন, ‘না, চার। থার্ড ম্যান আর পয়েন্ট

জোনটা ক্লিয়ার করতে চাচ্ছি। ’সাকিবকে নিয়ে বিতর্ক যতই রগরগে হোক, মাঠে সবসময়ই সাকিবের অভিব্যক্তি সাধারণ। অবলীলায় সবকিছু সহজ সাবলীলভাবে কি করে মেটান, এটাই তো প্রশ্ন দলের সতীর্থদের। সেই কৌতূহলি প্রশ্ন সমর্থক ও গণমাধ্যমেরও কম নয়।