যে কারনে বোলার এবং ফিল্ডারদের উপর ক্ষেপে লাল দিল্লি ক্যাপিটালসের কোচ

গ’ত’কা’ল ০১ এ’প্রি’ল আ’ই’পি’এ’লে’র ১৬ ত’ম আ’স’রে নি’জে’দে’র প্র’থ’ম ম্যা’চে ল’খ’ন”উ সু’পা’র জা’য়া’ন্ট’সে’র বি’প’ক্ষে মু’খো’মু’খি হ’য়ে’ছিল আ’স’রে’র অ’ন্য’ত’ম শ’ক্তি’শা’লী দ’ল দি’ল্লি ক্যা’পি’টা’ল’স। এ’ই মা’সে প্র’তি’প’ক্ষে’র কা’ছে ৫০ রা’নে’র বি’শা’ল ব্য’ব’ধা’নে হা’র’তে হ’য়

রিকি পন্টিংয়ের দল দিল্লি ক্যাপিটাল কে।সহজ ম্যাচ এমন বাজে ভাবে হারায় বোলিং এবং ফিল্ডিং এর উপরের চরমভাবে ক্ষেপে যান দিল্লি ক্যাপিটালস এর প্রধান কোচ। রিকি পন্টিং ২০২৩ আইপিএলে নিজেদের প্রথম ম্যাচে লখনউ সুপার জায়ান্টসের

কাছে ৫০ রানে হারের পর দলের জঘন্য ফিল্ডিং এবং বোলিংয়ে তীব্র সমালোচনা করেছেন।ম্যাচের পর সাংবাদিকদের পন্টিং বলেন, ‘পুরোপুরি সত্য কথা বলতে, পঞ্জাব সম্ভবত ওদের লক্ষ্যের চেয়ে বেশি রান পেয়েছে। আমি মনে করি না আমর

মাঠের মধ্যে নিজেদের সাহায্য করেছি। প্রথম চার ওভারের পর আমাদের ফিল্ডিং সত্যিই জঘন্য ছিল। দুই-একটি সুযোগ নিস করেছি। মিসফিল্ড করেছি। কাইল মেয়ার্সের ক্যাচ মিস করার খেসারত দিতে হয়েছে।’দক্ষিণ আফ্রিকার ওপেনার কুইন্টন

ডি’ককের অনুপস্থিতিতে বার্বাডোজের বাঁ-হাতি কাইল মেয়ার্স খেলতে নেমে আগুনে মেজাজে ছিলেন। তবে তিনি ১৪ রানে থাকার সময়ে, তাঁর ক্যাচ মিস করে দিল্লি। যিনি পরে ২৮ বলে হাফসেঞ্চুরি করেন। এবং ৩৮ বলে ৭৩ রানের দুরন্ত ইনিংস

খেলে লখনউ সুপার জায়ান্টসের ভিত মজবুত করেন।পন্টিং বলেন, ‘ও (মেয়ার্স) এই সুযোগ কাজে লাগায় এবং জীবনদান পাওয়ার পর থেকেই আক্রমণাত্মক মেজাজে ব্যাট করতে শুরু করে। ও আমাদের স্পিনারদের ছাতু করে। এটা আমাদের

জন্য ভালো শিক্ষা ছিল। আমরা জানি যে, মাঠে আমাদের আরও ক্ষুরধার হতে হবে। সুযোগ হাতছাড়া করা যাবে না এবং সেটা করলে, তার মূল্য চোকাতে হবে।’দিল্লি ক্যাপিটালসের প্রধান কোচের দাবি, এই পিচটি কখনও-ই ১৯০-এর বেশি রান

তোলার মতো ছিল না। তিনি বলেছেন, ‘আমার মনে হয়, আমরা সম্ভবত ১৬টি ছক্কা হজম করেছি। এর থেকেই বোঝা যাচ্ছে, আমরা খারাপ বোলিং করেছি। যখনই ১৬টি ছক্কা হজম করতে হয়, তখন খেলার রাশ নিজেদের হাতে নেওয়াটা

কঠিন হয়ে যায়। আমি মনে করি, মাত্র পাঁচটি চার অসাধারণ ছিল। সেই সঙ্গে আমার মতামত, এই উইক্েট ১৯০-এর বেশি রান হওয়ার মতো ছিল না। মাঠে প্রচুর শিশির ছিল এবং দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিং সুবিধাজনক ছিল। আমরা কেন ম্যাচ হেরেছি,

এর যাবতীয় কারণ নির্ণয় করে, আমরা তা শুধরে নেব।’পন্টিং মার্ক উডেরও প্রশংসা করেন। মার্ক উড পাঁচ উইকেট নিয়ে দিল্লির ব্যাটিং অর্ডারে ধস নামান। পন্টিং বলেছেন, ‘মার্ক উড অসামান্য ছিল। আমরা জানি যে, ও দৌড়ে এসে দ্রুত বল

করবে। সেই সঙ্গে স্টাম্প লক্ষ্য করে বল করবে। এবং তার বাউন্সার ব্যবহার তো করবেই। সেটাই ও করেছে। ও বিশ্বমানের খেলোয়াড়। টুর্নামেন্টের অগ্রগতির সঙ্গে সঙ্গে ও যদি ফিট থাকে, তবে আরও কিছু ভালো স্পেল দেখা যাবে।’