মুশফিককে নিয়ে ‘আপসেট’ বিসিবি

বাংলাদেশের ইতিহাসের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম। এক দশকের বেশি সময় ধরে বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ের ধ্রুবতারা তিনি। কিন্তু সময়ের সাথে সাথে যেন ব্যাটের ধার কমছে মুশফিকের। বিশ্বকাপের বছরে তাই মুশফিকের

ব্যাটিং ফর্ম নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছে বিসিবি।ক্রিকেট নিয়ে মুশফিকের একাগ্রতার কমতি নেই। সবার আগে অনুশীলনে আসেন, আবার ফেরেন সবার শেষে। মুশফিকের ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই নিয়মিত দৃশ্য এটি। পরিশ্রম আর একাগ্রতার

সম্মিলনে মাঠের পারফরম্যান্স দিয়ে তিনি হয়ে উঠেছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের অবিচ্ছেদ্য অংশ। তবে ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই বাজে উইকেট কিপিংয়ের জন্য সমালোচনার শিকার হতে হয়েছে তাঁকে।গত এক বছরে ঠিক মুশফিক

সুলভ ব্যাটিং করতে পারেননি এত তারকা। ভালো ইনিংস খেলেছেন ঠিকই, কিন্তু সেটা ধারাবাহিকভাবে আসেনি। তাছাড়া টি-টোয়েন্টি থেকে অবসর নেয়ায় খেলার চাপটাও কমে গেছে অনেক। কিন্তু তা সত্ত্বেও মুশফিকের ব্যাটিংয়ের

পুরনো সেই সুরটা যেন কেটে গেছে। ব্যাটিংয়ে নামার পর আগের সেই সাবলীল মুশফিককে কোথাও যেন খানিকটা আড়ষ্ট লাগছে।মুশফিকের ব্যাটিং নিয়ে তাই দুশ্চিন্তায় বিসিবিও। হতাশা লুকাননি বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনও।

তিনি ক্রিকেট বিষয়ক গণমাধ্যম ক্রিকবাজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘আমি মুশফিকের জন্য খুব আপসেট ছিলাম।কারণ গত দেড় বছর ধরে সে রান পাচ্ছিল না। আমি সব সময় বলেছি মুশফিক আমাদের সেরা ব্যাটার। আমি

এখনো মনে করি সে রান করতে পারবে। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে উইকেটকিপিং।যদি সে কিপিং না করে, তাহলে তার ফিল্ডিং নিয়ে প্রশ্ন উঠবে। যদি সে কিপিং করে, তবে তাকে কিছুটা উন্নতি করতে হবে। তবে বিপিএল ফাইনালে তাকে রান

করতে দেখে আমি ব্যক্তিগতভাবে খুব খুশি হয়েছি।’এক যুগ বাদে ভারতের মাটিতে বসছে বিশ্বকাপের আসর। উপমহাদেশের চেনা কন্ডিশন এবং ওডিয়াইতে বাংলাদেশের সাম্প্রতিক ফর্ম – সব মিলিয়ে বিশ্বকাপ জেতার এর চাইতে বড় সুযোগ

বাংলাদেশ বোধহয় আর পাবে না।তাছাড়া অঘটন না ঘটলে তামিম, সাকিব, মুশফিক, মাহমুদউল্লাহের এটাই শেষ বিশ্বকাপ। ফলে শেষটা তাঁরা নিশ্চিতভাবেই রাঙিয়ে তুলতে চাইবেন আপন মহিমায়। কিন্তু ব্যাট হাতে মুশফিকের ছন্দহীনতা

শেষ বেলায় দুশ্চিন্তায় ফেলে দিয়েছে সবাইকেই।তাছাড়া কিপিংয়েও মুশফিকের বাজে মিস অতীতে দলকে বারবার ডুবিয়েছে। বিশ্বকাপের প্রসঙ্গ আসতেই স্মৃতিতে ভেসে ওঠে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে মুশির সেই ভজকট পাকিয়ে ফেলা হতাশ

সেই দৃশ্য। ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই উইকেট কিপার হিসেবে খেলা মুশফিক ফিল্ডার হিসেবেও তেমন ভালো নন।ফলে তাঁকে নিয়ে দুশ্চিন্তার অন্ত নেই অধিনায়ক এবং টিম ম্যানেজমেন্টের।আশার ব্যাপার হল বিপিএলের

ফাইনালে দারুণ এক ফিফটি হাঁকিয়ে ফর্মে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছেন অভিজ্ঞ এই ব্যাটার। এখন দেখার বিষয় ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে নিজের পুরনো ফর্মে ফিরতে পারেন কিনা মুশফিক। তিনি ফর্মে ফিরলেই কেবল হাফ ছেড়ে বাঁচবে বিসিবি।