মানুষের জন্যই প্রাণ দিচ্ছি, তবু কেনো আমাদের ওপর হামলা: ফায়ার সার্ভিসের ডিজি

ব’ঙ্গ’বা’জা’রের অ’গ্নি’কা’ণ্ডে’র প’র ফা’য়া’র সা’র্ভি’সে’র হে’ড’কো’য়ার্টা’রে ভা’ঙ’চু’রে’র ঘ’ট’না’য় ক্ষো’ভ প্র’কা’শ ক’রে’ছে’ন ফা’য়া’র সা’র্ভি’সে’র ম’হা’প’রি’চা’লক (ডিজি) ব্রি’গে’ডি’য়া’র জে’না’রে’ল মো. মা’ই’ন উ’দ্দি’ন। এ’ক ব্রি’ফিং’য়ে বি’ষ’য়’টি নি’য়ে ক্ষো’ভ প্র’কা’শ ক’রে’ন তি’নি। এ’ক’ই’

সাথে বঙ্গবাজারের ওই ভবনটিকে ‘অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ’ হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছিল বলেও জানান তিনি। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৮ জন ফায়ার সার্ভিস কর্মী আহত হয়েছেন বলেও জানান তিনি।
মঙ্গলবার (৪ এপ্রিল) দুপুরে এক ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান

ফায়ার সার্ভিসের ডিজি। এর আগে সকাল ৬টার দিকে লাগে আগুন। পুড়ে গেছে বঙ্গবাজারের অন্তত সাড়ে ৫ হাজার দোকান।ভবনটিকে ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করা হয়েছিল উল্লেখ করে ফায়ার সার্ভিসের ডিজি জানান, ২০১৯ সালে বঙ্গবাজারের এ ভবনটিকে

অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করে ফায়ার সার্ভিস। ভবনের সামনে এ নিয়ে ব্যানারও টানানো হয়। সেই ব্যানারের ছবি ব্রিফিংয়ের সময় নিজের মোবাইল ফোনের মাধ্যমে প্রদর্শন করেন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মাইন উদ্দিন। বলেন, এখন পর্যন্ত

অন্তত ১০ বার ভবনটিতে নোটিশ দিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। এরপরও ব্যবস্থা না নিয়ে সেখানে ব্যবসা-বাণিজ্য চালিয়ে গেছেন সংশ্লিষ্টরা।এ সময় ফায়ার সার্ভিসের হেডকোয়ার্টারে ভাঙচুরের ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি। বলেন, আমরা দেশের মানুষের

জন্য প্রাণ দিচ্ছি। আমরা আমাদের সাধ্যমতো চেষ্টা করছি। তারপরও কেনো আমাদের ওপর হামলা-ভাঙচুর চালানো হচ্ছে?উল্লেখ্য, মঙ্গলবার সকাল ৬টায় বঙ্গবাজারে লাগে ভয়াবগ আগুন। তবে আগুন এখন মোটামুটি নিয়ন্ত্রণে আছে বলে জানিয়েছেন ফায়ার সার্ভিসের ডিজি। তবে পুরোপুরিভাবে আগুন নেভাতে আরও কিছুক্ষণ সময় লাগবে।