ব্রেকিং নিউজ: মেসিকে নিয়ে তিনটি খবরকে সরাসরি মিথ্যা বললেন তাঁর বাবা

সর্বকালের সেরা ফুটবলার মেসি। তাকে নিয়ে তো চারেদিকে গুন্জন থাকবেই। শুধু তাকে নিয়ে নয় বিশ্বের সকল তারকাদের নিয়ে গুজব খুব নতুন কোনো ঘটনা নয়। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের যুগে গুজব অনেক সময় সত্যি ঘটনার

চেয়েও বেশ প্রভাব তৈরি করতে সক্ষম হয়। খেলার জগতের তারকাদের নিয়েও প্রতিনিয়ত শোনা যায় নানা ধরনের গুজব। আর সে খেলোয়াড়টি যদি হন লিওনেল মেসির মতো কেউ হন তবে তো কথাই নেই।নানা সময় মেসিকে ঘিরে চাউর হয়

বিভিন্ন গুঞ্জন। গত কিছুদিন ধরেও তাঁকে নিয়ে শোনা যাচ্ছে নানা ধরনের খবর। যার সবটা যে সত্য নয়, তা বলাই বাহুল্য। মেসিকে ঘিরে তৈরি হওয়া গুজব নিয়ে এবার মুখ খুলেছেন তাঁর বাবা হোর্হে মেসি। মেসি সম্পর্কিত অন্তত তিনটি খবরকে

গুজব বলে মন্তব্য করেছেন হোর্হে।পিএসজির সঙ্গে এখন পর্যন্ত চুক্তি নবায়ন না হওয়ায় মেসিকে ঘিরে শোনা যাচ্ছে নানা গুঞ্জন। কখনো শোনা যায় মেসি সৌদি আরবে যাচ্ছেন, আবার কখনো শোনা যায় তাঁকে নেওয়ার জন্য টাকার বস্তা হাতে

অপেক্ষা করছে এলএ গ্যালাক্সি। পাশাপাশি মেসির বার্সেলোনা কিংবা নিউ ওয়েল’স ওল্ড বয়েজে ফেরার খবরও প্রচার করেছে অনেকে।শুধু এসবই নয়, পিএসজি কোচ ক্রিস্তফ গালতিয়েরের সঙ্গে মেসির সম্পর্ক ভালো নয় বলেও জানিয়েছে

অনেকে সংবাদমাধ্যম। কিন্তু এতসব খবরের ভিড়ে কোনটা যে সত্যি তা বের করা বেশ কঠিন ব্যাপারই বটে। তবে এসব খবরে মেসি যে বিরক্ত তা বোঝা যায় তাঁর বাবার (যিনি মেসির এজেন্টও) একটি ইনস্টাগ্রাম পোস্টে। যেখানে তিনি মেসিকে

নিয়ে চাউর হওয়া অন্তত তিনটি খবরকে মিথ্যা বলেছেন।হোর্হে বিরক্ত প্রকাশ করে লিখেছেন, ‘ভুয়া খবর? এগুলো বিশ্বাস করা যাবে না ? আমরা আর কোনো ভুয়া খবর সহ্য করব না।’
যে তিনটি খবরকে হোর্হে মেসি মিথ্যা বলে দাবি করেছেন

সেগুলো হলো, গালতিয়েরের সঙ্গে সমস্যার কারণে মঙ্গলবার মেসির আগে অনুশীলন ছেড়ে চলে যাওয়া। নতুন চুক্তি স্বাক্ষরের জন্য মেসির দেওয়া শর্ত পিএসজির না মানা এবং অন্যটি হলো আল হিলাল থেকে ৬০০ মিলিয়ন ইউরো বেতন দাবি

করেছেন মেসি।গালতিয়ের অবশ্য যতই বলুক, মেলতে থাকা গুজবের ডালপালা খুব সহজে হয়তো থামবে না। সম্প্রতি হোর্হেকে নিয়েও যে গুজব শোনা গেছে। বিশেষ করে হোর্হের সৌদি আরবে যাওয়ার সঙ্গে মেসির সৌদি ক্লাবের সংযোগ খুঁজতে চেয়েছেন অনেকে। সামনে হয়তো এমন গুঞ্জন আরও শোনা যাবে। অন্তত মেসির ভবিষ্যৎ নিয়ে নিশ্চিত কোনো খবর আসা পর্যন্ত তো বটেই।