ব্যাটারদের কষ্ট হবে ভেবে উদযাপন করেন না হাসান

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের পেস ইউনিটে বইছে বসন্তের হাওয়া। পুরো পেস ইউনিটকে একই সঙ্গে এমন ধারাবাহিক পারফর্ম করতে শেষ কবে দেখা গেছে, সেটা আপাতত মনে করা মুশকিল। অথচ সাম্প্রতিক সময়ে তাসকিন আহমেদের নেতৃত্বে

যেন আকাশে উড়ছে তারা। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচটাতেও তিন পেসারই দুই বা ততোধিক উইকেট পেয়েছেন। যেখানে ৫ উইকেট শিকার করে ম্যাচ জয়ের নায়ক হাসান মাহমুদ।
ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মত পাঁচ উইকেট পেলেন। দিনটা হাসানের

জন্য একটু বিশেষই। তবে এমন আগুন ঝরানো পারফরম্যান্সের দিনেও উদযাপনে সাদা-মাঠা এই পেসার। ব্যাপারটাকে ‘স্পিরিট অব গেমের’ দৃষ্টিকোণ থেকে দেখলে পুরোটাই ইতিবাচক।
তারপরও অনেকের মধ্যে কৌতূহল, উদযাপনে কেন সাদা-মাঠা

থাকবেন এই তরুণ পেসার? বাইশগজে পেসারদেরতো বরবরই আগ্রাসী উদযাপন করতেই দেখা যায়। হাসানের মধ্যেও আগ্রাসন থাকবে এটাই কি স্বাভাবিক না? ভক্তদের এমন প্রশ্নের উত্তর মিলেছে ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে।তিনি বলেন, ‘(উদযাপন)

করি না, এমনিতেই। ’ অবশ্য একটু পর হাসান বললেন আসল কথা, ‘ব্যাটারকে আউট করলে তার আরেকটু বেশি খারাপ হবে হয়তো এটা ভেবে করি না। ’ প্রথমবার ৫ উইকেট নিয়ে হাসান বলেন, ‘প্রথমত বলবো এটা আমার প্রথম পাঁচ উইকেট

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। ঘরোয়াতেও পাঁচ উইকেট পাওয়া হয়নি। সবমিলিয়ে আলহামদুলিল্লাহ। আমাদের যে পেস বোলাররা আছে, তারাগত কয়েক বছর ধরে কঠোর পরিশ্রম করছি। আমাদের অ্যালান ডোনাল্ড আছেন, তার সঙ্গে ভালো একটা

সম্পর্ক আছে সবার। চেষ্টা করছি নিজেদের উন্নতি করার। ’পেসারদের এমন উন্নতিতে অবশ্য আলাদা করে একজনের নাম সবসময় প্রথমে চলে আসে, তিনি অ্যালান ডোনাল্ড। টাইগারদের পেস বোলিং ওস্তাদ। গতকালই সিলেটে সংবাদ সম্মেলনে ডোনাল্ড

জানিয়েছিলেন তিনি এখানে বাহবা নিতে আসেননি, কাজ করতে এসেছেন। অবশ্য একদিন পরই আবার তরুণ তারকা পেসার হাসান মাহমুদের বাহবা পেলেন সাবেক আফ্রিকান এই তারকা পেসার।হাসান বলেন, ‘আমি সবার কাছে কৃতজ্ঞ। এই প্রথম আমি

একটি ফাইফার পেয়েছি এবং আমি বেশ উত্তেজিত। ফাস্ট বোলারদের জন্য সিলেটে আবহাওয়াও খুব ভালো এবং আমরা অনেক উপভোগ করেছি। এই সবই একজন ব্যক্তির (অ্যালান ডোনাল্ড) কারণে। ফাস্ট বোলিং ইউনিট হিসেবে আমরা কঠোর পরিশ্রম করছি এবং দিনে দিনে উন্নতি করছি। আমরা কঠোর পরিশ্রম করছি এবং এটি ভাল হচ্ছে।’