বিমানের অ্যা’ম্বা’সে’ড’র নয় যা হতে চেয়েছিলেন বিশ্বসেরা সাকিব জানালেন নিজেই

বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়রা বেশ ফুরফুরে মেজাজে আছেন। মঙ্গলবার (২১ মার্চ) বাংলাদেশ দলের অনুশীলন বা ম্যাচ না থাকায় দলের খেলোয়াড়রা কেউ হোটেলরুমে বিশ্রামে কেউবা বাইরে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। তবে সাকিব আল হাসানের

যেন নেই কোনো বিরাম।বাংলাদেশ-আয়ারল্যান্ডের মধ্যকার ওয়ানডে সিরিজের মাঝপথে সিলেট থেকে ঢাকায় উড়ে এসে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হলেন টাইগার অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।আয়ারল্যান্ড

সিরিজের দুদিন আগে দুবাই থেকে দেশে ফেরেন সাকিব। এরপর সিলেটে প্রথম ওয়ানডে শেষে পরের দিন সকালে ঢাকায় এআইইউবি’র সমাবর্তনে যোগ দেন। দ্বিতীয় ওয়ানডের পর কাল আবার এলেন ঢাকায়। খেলার মধ্যে এত বেশি

ভ্রমণের ধকল কীভাবে সামলান?সাকিবে কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘যে পারে, সে সবই পারে।’বিমান বাংলাদেশের নিজস্ব দল থাকলে সেই দলের অধিনায়কত্ব করবেন কিনা- এমন প্রশ্নে সাকিব বলেন, ‘তেমন হলে অধিনায়ক,

কোচ সবই হব।’ছোটবেলায় বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দেওয়ার সময় আকাশে বিমান উড়ে গেলে সাকিব ও তার বন্ধুরা কোন দেশের বিমান, এই নিয়ে কথা বলতেন- এভাবেই শৈশবের স্মৃতিচারণ করেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।এদিকে কখনো পাইলট

হতে চেয়েছেন কি না জানতে চাইলে সাকিব বলেন, ‘ছোটবেলায় তো অনেক কিছুই হতে চেয়েছি। ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, পাইলট অনেক কিছুই।’এদিকে আগামী বৃহস্পতিবার সিরিজের শেষ ওয়ানডেতে লড়বে বাংলাদেশ দল। ইতোমধ্যে আইরিশদের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে জিতে সিরিজে এগিয়ে রয়েছে টাইগাররা। তবে দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচটি বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়েছিল।