বাটলার পুড়ছেন ‘ডাইভ’ না দেওয়ার আক্ষেপে, হেড কোচ পুড়ছেন ‘যন্ত্রণায়’

মেহেদী মিরাজের এক থ্রোতেই যেন ম্যাচের পরিস্থিতি বদলে যায়। শেষ ম্যাচেও জিততে না পারায় যন্ত্রণা সহ্য করতে হচ্ছে ইংল্যান্ড দলের হেড কোচের।বাংলাদেশের কাছে পরাজয় যেন মেনেই নিতে পারছেন না ইংল্যান্ডের হেড কোচ ম্যাথু মট।

বিশেষ করে শেষ ম্যাচটি জয়ের কাছাকাছি গিয়েও হারতে হওয়ায় আরও বেশি যন্ত্রণা দিচ্ছে এই হেড কোচকে।মিরাজের-এক-থ্রোই-যেন-ম্যাচের-মোমেন্টাম-বদলে-দেয় ৪২ বলে ৫৯ রানের প্রয়োজন ছিল ইংল্যান্ডের। হাতে ৯ উইকেট!

স্বাভাবিকভাবে ইংল্যান্ড যেমন দল, তাঁতে ম্যাচ জেতারই কথা। কিন্তু ১৪তম ওভারই যেন সবকিছু উলটপালট করে দিল।ঐ ওভারটি করতে অধিনায়ক সাকিব বল তুলে দেন মুস্তাফিজের হাতে। ওভারের প্রথম বলেই কিপার লিটনের দারুণ

এক ক্যাচে আউট হন ৫৩ রান করা মালান। পরের বলেই ডাকেট কভারের দিকে বল ঠেলে দিয়ে সিঙ্গেল নিতে চান।কিন্তু মিরাজের দারুণ এক থ্রোতে রান-আউট হন বাটলার। পরপর দুই বলে দুই উইকেট নেই ইংল্যান্ডের। ম্যাচ যেন বদলে যায়

সেখানেই। অথচ বাটলার যে ধরণের অ্যাথলেট, তাঁতে তিনি ডাইভ দিলে হয়ত বেঁচে যেতে।ম্যাচ শেষে যেন সেই ডাইভ না দেওয়া নিয়েই আক্ষেপ করেছেন বাটলার। “ডাইভ না দেওয়ায় আমি নিজেকে নিয়ে খুবই হতাশ। আপনাকে পুরোপুরি কমিটেড থাকতে হবে রানটি সম্পন্ন হওয়ার জন্য। সত্যি বলতে, ওটি আমাদের ম্যাচ থেকে ছিটকে দেয়।”

ইংল্যান্ডের-হেড-কোচ-ম্যথু-মট বাটলারের মতো ইংল্যান্ড কোচ মটও বলছেন মুস্তাফিজের ওভারটি ম্যাচের ‘টার্নিং পয়েন্ট’ ছিল। ম্যাচ শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। সেখানেই মুস্তাফিজের বোলিং ও মিরাজের থ্রো নিয়ে

আফসোস করতে দেখা যায়।“ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট মিরাজের ঐ থ্রো। আমি মনে করি, আজকে টার্নিং পয়েন্ট ছিল সেটি। অসাধারণ ফিল্ডিং ছিল ওটা। জস (বাটলার) সেট থাকলে আপনি শেষ দিকে ভরসা পাবেন যে ম্যাচ আপনি জিততে পারেন।

ওই পথেই আজ এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিল সে। তখন ঐ রান-আউট খেলাটাকে পুরোপুরি বদলে দেয়।” ওয়ানডে সিরিজ জিতেছিল ইংল্যান্ড। প্রথম ম্যাচটি বাংলাদেশ আরও কিছু রান করতে পারলে কিংবা মালানের উইকেট নিতে পারলে হয়ত

সিরিজটিও জেতার সুযোগ ছিল।তবে টি-টোয়েন্টিতে অন্যরকম পারফরম্যান্স দেখাল টাইগাররা। প্রথম দুই ম্যাচেই সিরিজ নিজেদের করে নিয়েছে। মট অবশ্য যন্ত্রণা পাচ্ছেন সিরিজের শেষটি ভালোভাবে করতে না পারায়।“বাংলাদেশে আমরা

শেষটা ভালোভাবে করতে চেয়েছিলাম। আমাদের যে চ্যালেঞ্জের মুখে এই সিরিজে পড়তে হয়েছে সেই কথা মাথায় রেখে বলব এই সিরিজ আমাদের জন্য দুর্দান্ত একটা সিরিজ গিয়েছে।ঘরের মাটিতে বাংলাদেশ খুব শক্তিশালী একটা দল। সবাই ম্যাচে পারফরম্যান্স করতে মুখিয়ে ছিল। আমাদের ফিল্ডিং আজ ভালো হয়নি। সেটা গ্রাউন্ড ফিল্ডিং হোক কিংবা ক্যাচিং। এই সিরিজ হারটা আমাদের কাছে অত্যন্ত যন্ত্রণার।”