বাকি ২২১ বল, ক্রিকেট ইতিহাস ১ম বারের মতো দু’র্ধ’র্ষ রেকর্ড গড়ে সিরিজ জয় করলো বাংলাদেশ

সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে তরুণ পেসার হাসান মাহমুদ, তাসকিন আহমেদ ও এবাদত হোসেনদের দাপটে অল্প রানেই গুটিয়ে গেছে আইরিশরা।টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই হাসান মাহমুদের আগ্রাসী বোলিংয়ে চাপে

পড়ে আয়ারল্যান্ড। এরপর এবাদত-তাসকিনও তাদের চেপে ধরেন।টাইগারদের পেস ব্যাটারির দাপুটে আক্রমণে মাত্র ২৮.১ ওভারে ১০১ রানেই সিলেটে গুটিয়ে যায় আয়ারল্যান্ড। টাইগারদের হয়ে হাসান নিয়েছেন ৫ উইকেট আর

তাসকিনের শিকার ৩। আর এবাদত হোসেন ঝুলিতে পুরেছেন ২টি উইকেট।জবাবে ১০২ রানের লক্ষে বাংলাদেশের হয়ে লিটনকে নিয়ে ওপেন করতে নামেন অধিনায়ক তামিম। শুরুতে বল করতে আসেন মার্ক অ্যাডায়ার। ১ম ওভারের ২য় বলে

৪ মারেন তামিম। ১ ওভার শেষে বাংলাদেশের স্কোর বিনা উইকেটে ৬ রান।২য় ওভারে গ্রাহাম হিউম বলে ২ টি ৪ মারেন লিটন। ২ ওভার শেষে বাংলাদেশের স্কোর বিনা উইকেটে ১৪ রান।৩য় ওভারে মার্ক অ্যাডায়ার বলে ৩ টি ৪ মারেন তামিম।

৩ ওভার শেষে বাংলাদেশের স্কোর বিনা উইকেটে ২৭ রান।৫ ওভার শেষে বাংলাদেশের স্কোর বিনা উইকেটে ৩৯ রান। কার্টিস ক্যাম্ফারের করা ওভারে লিটন দাস মারে দুটি চার। সেই ওভারেই ৫০ পেরিয়ে গেছে স্বাগতিকেরা।

৭ম ওভারে ম্যাথিউ হামফ্রেসের বলে বিশাল ৬ মারেন তামিম।৭ ওভার শেষে বাংলাদেশের স্কোর বিনা উইকেটে ৫৬ রান। ৯ তম ওভারে পরপর ২ টি ৪ মারেন লিটন।৯ ওভার শেষে বাংলাদেশের স্কোর বিনা উইকেটে ৮১ রান।

ম্যাথিউ হামফ্রেস মেডেন নিলে ১০ ওভারে বাংলাদেশের স্কোর বিনা উইকেটে ৮১ রান।প্রথম ১০ ওভারে বাংলাদেশের চতুর্থ সর্বোচ্চ স্কোর। সর্বোচ্চ স্কোরটি ৯৪ রানের, ২০১৯ সালে মালাহাইডে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। ১১ তম

ওভারে বিশাল ৬ মারে তামিম। ১১ ওভার শেষে বাংলাদেশের স্কোর বিনা উইকেটে ৮৮ রান।১২ তম ওভারে কার্টিস ক্যাম্পারের বলে ১টি ৪ মারেন লিটন।১২ ওভার শেষে বাংলাদেশের স্কোর বিনা উইকেটে ৯৩ রান।ম্যাথু হামফ্রিসকে সুইপ করে

চার মেরে ৩৭ বলে ফিফটি পূর্ণ করেছেন লিটন দাস, তামিমের সঙ্গে তাঁর ওপেনিং জুটিও ১০০ রান পেরিয়ে গেছে তাতেই। আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে স্কোরও হয়েছে টাই।পরের ওভারে কার্টিস ক্যাম্ফারকে থার্ডম্যানে খেলে সিঙ্গেল নিয়ে বাংলাদেশের

১০ উইকেটের জয় নিশ্চিত করেছেন তামিম। ওয়ানডেতে এই প্রথম ১০ উইকেটে জিতল বাংলাদেশ।রানতাড়ায় সবচেয়ে বেশি বল বাকি রেখে বাংলাদেশের জয়ের রেকর্ড। এ ম্যাচে সেটি হুমকির মুখে পড়লেও অক্ষতই থাকছে শেষ পর্যন্ত। তালিকায় পরেরটি (১৮০ বল) অবশ্য ভাঙছে।