প্রশংসায় ভাসছে বিশ্ব জয়ী হাফেজ তাকরিম

দু’বা’ই আ’ন্ত’র্জা’তি’ক কো’র’আ’ন প্র’তি’যো’গি’তা’য় প্র’থ’ম স্থা’ন অ’র্জ’ন ক’রে’ছে বাং’লা’দে’শ’র সা’লে’হ আ’হ’মে’দ তা’ক’রি’ম। স্থা’নী’য় স’ম’য় ম’ঙ্গ’ল’বা’র (৪ এপ্রিল) দু’বাই এ’ক্স’পো সি’টি’র আ’ল-ও’য়া’সাল প্লা’জা’য় অ’নু’ষ্ঠি’ত ব’র্ণা’ঢ্য অ’নু’ষ্ঠা’নে তাঁ’কে পুর’স্কা’র ও স’ম্মা’ন’না

তু’লে দে’ন শে’খ মু’হা’ম্ম’দ বি’ন র’শি’দ বি’ন মু’হা’ম্ম’দ র’শি’দ আ’লে-মা’ক’তু’ম। তা’ক’রি’মে’র ১ম ‘স্থা’ন অ’র্জ’ন ক’রা’র বি’ষ’য়’টি ফে’স’বু’কে পো’স্টে’র মা’ধ্য’মে নি’শ্চি’ত ক’রে’ছে’ন মা’র’কা’যু ফ’য়’জি’ল কোর’আ’নের শি’ক্ষ’ক হা’ফে’জ আ’ব্দু’ল্লা’হ আ’ল মা’মু’ন। এ’র’প’র

থে’কে’ই হা’ফে’জ তা’ক’রি’ম’কে নি’য়ে নে’টি’জ’ন’রা প্র’শং’সা’য় ভা’সা’চ্ছে’ন।দে’শে’র স’র্ব’স্ত’রে’র মা’নু’ষ তা’র ম’ঙ্গ’ল কা’ম’না ক’রে ফে’স’বু’কে পো’স্ট দি’য়ে’ছে’ন। কে’উ কে’উ তাঁ’কে রা’ষ্ট্রী’য়ভা’বে স’ম্মা’ন’না দে’ও’য়ার’ও দা’বি ‘জা’না’ন। তা’ক’রী’মে’র এ’ই সা’ফ’ল্যে উ’চ্ছ্ব’সি’ত

হয়ে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন জনপ্রিয় ইসলামী বক্তা ড. মিজানুর রহমান আজহারী। এছাড়া ও তাকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শুভকামনা জানিয়েছেন শত শত মানুষ।এর আগে , বুধবার (৫ এপ্রিল) বিকাল সাড়ে পাঁচটার দিকে এক বিশেষ

ফ্লাইটে শাহ জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামেন হাফেজ তাকরীম। সঙ্গে ছিলেন তার উস্তাদ, মারকাযু ফয়জিল কুরআন আল ইসলামী ঢাকার প্রিন্সিপাল মুফতি মুরতাজা হাসান ফয়েজী মাসুম। কিন্তু ইফতারের সময় সন্নিকটে হওয়ায় তারা

বিমানবন্দর থেকে মাগরিবের নামাজের পর বের হন। এসময় কুরআনের প্রেমে বিমানবন্দরে ছুটে যান শত শত মানুষ। তাকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেয় অনেকে।গত ২৪ মার্চ থেকে শুরু হয় দুবাই আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতার ২৬তম পর্ব। এই

প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় স্থান লাভ করে ইথিওপিয়ার আব্বাস হাদি উমর ও তৃতীয় স্থান লাভ করে সৌদি আরবের খালিদ সুলাইমান সালিহ আল-বারকানি। যৌথভাবে চতুর্থ স্থান লাভ ক্যামেরুনের নুরুদ্দিন ও ইন্দোনেশিয়ার ফাতওয়া হাদিস

মাওলানা এবং ষষ্ঠ স্থান লাভ করে কেনিয়ার আবদুল আলিম আবদুর রহিম মুহাম্মদ হাজি। যৌথভাবে সপ্তম স্থান লাভ করে সিরিয়ার মুহাম্মদ হাজ আসআদ ও ইয়েমেনের মুহাম্মদ আবদুহু আহমদ কাসিম। যৌথভাবে নবম স্থান লাভ করে ব্রুনাইয়ের

আবদুল আজিজ বিন নুর নাসরান ও মরক্কোর হামজা মুসতাকিম।আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতার শেষ দিন স্বাগত বক্তব্য দেন আয়োজক সংস্থার উপ-প্রধান ড. সায়িদ আবদুল্লাহ হারিব। এ সময় বর্ষসেরা ইসলামী ব্যক্তিত্ব হিসেবে সম্মাননা দেওয়া হয়

আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শায়খ ড. আহমদ ওমর হাশিমকে। তা ছাড়া প্রতিযোগিতার বিচারক প্যানেলে দায়িত্ব পালন করা বিশ্বের খ্যাতিমান কোরআন বিশেষজ্ঞদেরও বিশেষ সম্মাননা দেওয়া হয়। তারা হলেন- বাংলাদেশের শায়খ

শুয়াইব মুজিবুল হক, সৌদি আরবের ড. আহমদ বিন হামুদ, আমিরাতের ড. সালিম আল-দাওবি, মরক্কোর শায়খ আবদুল্লাহ আইশ, মিসরের জামাল ফারুক, পাকিস্তানের ড. আহমদ মিয়া থানভি।এর আগে গত বছর মার্চে ইরানে

অনুষ্ঠিত কোরআন প্রতিযোগিতায় প্রথম এবং সেপ্টেম্বরে মক্কায় অনুষ্ঠিত কোরআন প্রতিযোগিতায় তৃতীয় স্থান অধিকার করে তাকরিম। সালেহ আহমদ তাকরিম ঢাকার মারকাযু ফয়জিল কুরআন আল ইসলামী মাদরাসার কিতাব বিভাগের শিক্ষার্থী।

তার বাড়ি টাঙ্গাইলের নাগরপুর থানার ভাদ্রা গ্রামে। তার বাবা হাফেজ আব্দুর রহমান মাদরাসার শিক্ষক।