নরকিয়ার ৪ ওভারে ৩৯ রান, সামনের ম্যাচে মুস্তাফিজ নাকি নরকিয়া জানিয়ে দিলো দিল্লীর কোচ ওয়াটসন

আ’রও এ’ক’টা ম্যা’চ দি’ল্লি ক্যা’পি’টা’ল’সে’র বে’ঞ্চে ব’সে’ই কা’টা’তে হ’লো বাং’লা’দে’শে’র মো’স্তা’ফি’জু’র র’হ’মা’ন’কে। ১ এ’প্রি’ল ত’ড়ি’ঘ’ড়ি ক’রে ভা’ড়া ক’রা বি’মা’ন ঢা”কা’য় পা’ঠি’য়ে মো’স্তা’ফি’জ’কে উ’ড়ি’য়ে নি’য়ে গি’য়ে’ছি’ল আ’ই’পি’এ’লে তাঁ’র দ’ল দি’ল্লি।

কি’ন্তু সে’দি’ন ল’ক্ষ্ণৌ’র বি’প’ক্ষে খে’লা’নো হ’য়’নি তাঁ’কে। কা’টা’র মা’স্টা’র’খ্যা’ত বাং’লা’দে’শে’র এ’ই পে’সা’র সু’যো’গ পে’লে’ন না আ’জ গু’জ’রা’ট টা’ই’টা’নসে’র বি’প’ক্ষে ম্যা’চেও। বা’ই’রে ব’সে’ই মো’স্তা’ফি’জ দে’খ’লে’ন তাঁ’র দ’লে’র হা’র।ঘ’রে’র মা’ঠে ‘ফি’রে’ও লা’ভ

হল না। ফিরোজ শা কোটলায় হেরে গেল দিল্লি ক্যাপিটালস। আইপিএলে টানা দ্বিতীয় হার তাদের। সেটাও এল ঋষভ পন্থের সামনে। গুজরাত টাইটান্স টানা দ্বিতীয় জয় পেল।আগে ব্যাট করে ৮ উইকেটে ১৬২ রান করেছিল দিল্লি। তাড়া

করতে নেমে সাই সুদর্শন ও ডেভিড মিলারের দারুণ ব্যাটিংয়ে গুজরাট সেটা পেরিয়ে গেছে ৬ উইকেট ও ১১ বল হাতে রেখেই।তাড়া করতে নেমে পাওয়ারপ্লের ৬ ওভারের মধ্যেই ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলে গুজরাট। রানটা অবশ্য খারাপ ছিল

না—৫৪। ঋদ্ধিমান সাহা (১৪), শুবমান গিল (১৪) ও অধিনায়ক হার্দিক পান্ডিয়া (৫)—কেউই বল নষ্ট করেননি মোটেও।চতুর্থ উইকেটে সাই সুদর্শন ও বিজয় শঙ্কর মিলে গড়েন ৪৪ বলে ৫৩ রানের জুটি। জশ লিটলের জায়গায় ‘ইমপ্যাক্ট

প্লেয়ার’ হিসেবে নামা বিজয় শঙ্কর আউট হয়েছেন ২৩ বলে ২৯ রান করে।এরপর সুদর্শনকে দারুণ সঙ্গ দিয়েছেন ডেভিড মিলার। এ দুজনের অবিচ্ছিন্ন ৫৬ রানের জুটিতে ১১ বল বাকি থাকতেই ম্যাচ জিতে যায় গুজরাট।সুদর্শন অপরাজিত

ছিলেন ২ ছক্কা ও ৪ চারে ৪৮ বলে ৬২ রান করে। মিলার করেছেন ১৬ বলে ২ চার ও ২ ছক্কায় ৩১ রান।এনরিখ নরকিয়া ম্যাচের দিন সকালে দিল্লী দলের সাথে যোগ দিয়েই একাদশে জায়গা পেয়ে যান। কিন্তু প্রথম ম্যাচে মুস্তাফিজ ঠিক একই ভাবে

দলের সাথে যোগ হওয়ার পরেও দলে জায়াগা পায় নি। এই কারণেই বাংলাদেশের ক্রিকেট ভক্তদের মনে প্রশ্ন উঠছে এবার কি তাহলে পুরো আসর সাইড ব্যাঞ্চেই বসে থাকতে হবে মুস্তাফিজকে?তবে আজ নরকিয়া তার নিজের প্রথম

দুই ওভারে দুই উইকেট তুলে নিলেও রান দিয়েছেন ৩৯ যা দিল্লীর কোচদের ভাবনার বিষয় হওয়া দরকার ছিল। কিন্তু দিল্লীর সহকারী কোচ ওয়াটসন খেলার মাঝে নরকিয়ার বোলিং নিয়ে প্রশংসায় মাতেন। তার ভাষ্য মতে প্রথম ম্যাচে এসেই

এভাবে বোলিং করা আসলেই অসাধারণ ব্যাপার এবং তারা এনরিখ নরকিয়ার এমন কাম বেকে অনেক বেশী খুশি।কোচের এমন কথায় স্পষ্ট বুঝা যাচ্ছে যে সামনের ম্যাচেও একাদশে জায়গা পাবেন না মুস্তাফিজ। অনেকে বলছেন মুস্তাফিজকে দলে নেওয়া হয়েছে দিল্লী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলার রিচ বাড়ানোর জন্য।