দ্বিতীয় মেয়াদে বাংলাদেশে এসেই মাশরাফির সাথে দ্বন্দ্ব নিয়ে মুখ খুললেন হাথুরুসিংহে

দ্বিতীয় মেয়াদে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের দায়িত্ব নিতে সোমবার (২০ ফেব্রুয়ারি) ঢাকায় পা রেখেছেন শ্রীলঙ্কান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে।দ্বিতীয়বার টাইগারদের কোচের দায়িত্ব নিয়ে আজ বুধবার প্রথমবার সংবাদ সম্মেলনে

এসেছিলেন ‘কড়া হেডমাস্টার’ খ্যাত এই কোচ।রাসেল ডোমিঙ্গোর বিদায়ের ওর অনেক জল্পনা-কল্পনার জন্ম দিয়ে শেষমেশ দ্বিতীয় দফায় হাথুরুসিংহকেই টাইগারদের দায়িত্ব তুলে দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।একসময়ের

আলোচিত-সমালোচিত এই কোচের কাঁধেই নতুন করে দায়িত্ব তুলে দেওয়া নিয়ে এবারও সৃষ্টি হয়েছিলো বিতর্ক। নতুন করে দায়িত্ব নিয়ে নিজের প্রথম সংবাদ সম্মেলনেই আরও একবার বিতর্ক উস্কে দিলেন হাথুরু।আগের মেয়াদে হাথুরুসিংহে

মাঠের পারফরম্যান্সে সাফল্য এনে দিলেও মাঠের বাইরের কর্মকাণ্ডে তাকে নিয়ে অখুশি ছিলেন অনেকেই। বিশেষত, দলের সিনিয়র ক্রিকেটারদের সঙ্গে হাথুরুর দ্বন্দ্ব ছিলো বেশ স্পষ্ট।সাকিব, তামিম, মুশফিকসহ অন্য সিনিয়রদের

সঙ্গেও মনোমালিন্যের রেশ পাওয়া গিয়েছিলো বিভিন্ন ঘটনায়। সেসময় রঙিন জার্সির অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজাটি-টোয়েন্টি থেকে অবসরও নিয়েছিলেন তার সময়েই। গুঞ্জন ছিলো মাশরাফির এই অবসরের পেছনে কলকাঠি নেড়েছেন হাথুরু।

আজ মিরপুরে সংবাদ সম্মেলনে আসলে সেই মাশরাফিকে নিয়েই প্রশ্ন করা হয় হাথুরুসিংহকে। সেই প্রশ্নের উত্তরেই তিনি যা বলেছেন তা ক্ষোভ সৃষ্টি করতে পারে মাশরাফির ভক্ত-সমর্থকদের মনে। মাশরাফি টি-টোয়েন্টি ছেড়েছেন সেই ২০১৭ সালে।

ওয়ানডে থেকে অবসর না নিলেও সর্বশেষ জাতীয় দলের জার্সি গায়ে মাঠে নেমেছেন ২০২০ সালে। এরপর থেকেই জাতীয় দলের বাইরে বাংলাদেশের সাবেক এই অধিনায়ক।বাংলাদেশের সবচেয়ে সফল এই অধিনায়কের অবসর নিয়ে জল্পনা

অনেক দিন ধরেই। তবে অনেকেরই চাওয়া তাকে যেন মাঠ থেকে সম্মানজনক বিদায় দেওয়া হয়।এই ব্যাপারেই হাথুরুসিংহকে প্রশ্ন করা হয়, দেশসেরা অধিনায়কখ্যাত মাশরাফির জাতীয় দলের ফেরার আর কোনো সম্ভাবনা আছে কিনা।

এই প্রশ্নের জবাবে লঙ্কান কোচ বলেন, ‘মাশরাফি! কেন? নির্বাচন করার জন্য? আমার তো মনে হয় সে আর ক্রিকেট খেলে না! তাই না?’সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে উল্টো প্রশ্ন করে হাথুরু কি মাশরাফির জাতীয় দলের ফেরার সম্ভাবনাকে একবারেই মাটিচাপা দিয়ে দিলেন?