দলে আসতে না আসতেই সিনিয়রদের দলে না রাখার কঠিন হুশিয়ার দিলেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে

পারফর্ম না করলে সিনিয়রদেরও দলে রাখা হবে না- এমন হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। নতুন করে বাংলাদেশ দলের প্রধান কোচের দায়িত্ব নেওয়া চন্ডিকা হাথুরুসিংহে দল গঠনের ক্ষেত্রে কোনো ছাড় দেবেন

না বলে জানিয়েছেন দেশের ক্রিকেটের এই অভিভাবক।ক্রিকবাজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বিসিবি সভাপতি জানিয়েছেন, সিনিয়র ক্রিকেটাররা তাদের ভবিষ্যৎ নিয়ে পরিকল্পনা না জানালে বোর্ড ও টিম ম্যানেজমেন্টই তাদের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত

নেবে। বিদায়ী প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর সাথে বাংলাদেশের সিনিয়র ক্রিকেটারদের সম্পর্কের অবনতি ঘটেছিল বলেও দাবি করেছেন তিনি।পাপন বলেন, ‘সিনিয়রদের ম্যানেজ করা কঠিন হবে। ডমিঙ্গোরও সিনিয়রদের সাথে সমস্যা ছিল

এবং একপর্যায়ে সে হাল ছেড়ে দেয়। হাল ছেড়ে দিলে তো আমরা উপকৃত হবো না। কোচ যদি যা খুশি তা করতে দেয় তাহলে তো কোচকে রাখার কোনো মানে নেই। তখনই পরিবর্তনটা আনতে হয়।’কঠিন সিদ্ধান্তের ইঙ্গিত দিয়ে তিনি জানান,

‘আমি এবার সভাপতি হতে চাইনি, কারণ আমার প্রথম মেয়াদের মতো এবার কিছু কঠিন সিদ্ধান্ত আমাকে নিতে হবে। সিনিয়রদের ছাড়া কঠিন হবে। তবে আমাদের খেলোয়াড়দের সমস্যা হল তারা তাদের ভবিষ্যৎ নিয়ে কিছু বলে না। হাথুরুসিংহের

জন্য এটা বড় এক চ্যালেঞ্জ হবে। কারণ আমি জানি, সিনিয়ররা পারফর্ম না করলে হাথুরু তাদের দলে রাখবে না।’জ্যেষ্ঠতা বা সম্পর্ক বিচার করে হাথুরুসিংহে কোনো ক্রিকেটারকে দলে রাখবেন না, এমনটি জানিয়ে বিসিবি সভাপতির কণ্ঠে

উঠে এল মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের কথাও। রিয়াদ-মুশফিকের ব্যাটিং নিয়ে সংশয় না থাকলেও রিয়াদের ফিল্ডিং ও মুশফিকের কিপিং নিয়ে কিছুটা শঙ্কিত।তিনি জানান, ‘কিছু কোচ সুসম্পর্কের কারণে অনেককে দলে রাখে। হাথুরু

এটা করবে না। সে সুযোগ দিবে, যাচাই করবে তবে কোনো খেলোয়াড় রান না করলে দলে রাখবে না। মুশফিক ও রিয়াদের পারফরম্যান্স নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। মুশফিক বিপিএল ফাইনালে রান করেছে দেখে স্বস্তি পেয়েছি।’‘আমি এখনও

মনে করি মুশফিক রান করতে পারবে। তবে সমস্যা হল কিপিং। সে কিপিং না করলে তার ফিল্ডিং নিয়ে প্রশ্ন উঠবে। আর কিপিং করতে হলে তাকে আরেকটু উন্নতি করতে হবে। রিয়াদের ব্যাটিং নিয়েও কোনো সমস্যা নেই, তবে অন্যদের অভিযোগ তার ফিল্ডিং নিয়ে। আমি মনে করি এখন তারা খেলতে পারে। তবে দুই বছর পর, অবশ্যই না।’