তামিম সাকিব ঝগড়া মাঠের মধ্যেই গ্রুপিং, চিন্তায় বিসিবি

তামিম-সাকিবের বন্ধুত্ব তাঁদের ক্রিকেট ক্যারিয়ারের মতোই শৈশব, কৈশোর পেরিয়ে এখন তারুণ্যে। বিকেএসপিতে অনূর্ধ্ব-১৫ দলের ক্যাম্পে তামিমের সঙ্গে প্রথম দেখা সাকিবের। অনূর্ধ্ব-১৭ ও অনূর্ধ্ব-১৮ দলেও খেলেছেন একসঙ্গে।

জাতীয় দলে আসার পর গাঢ় হয় দুজনের বন্ধুত্ব। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে দুজনের সম্পর্কের অবনতি হয়েছে। কয়েকবার গণমাধ্যমেও উঠে এসেছিল এসব তথ্য। এবার বিষয়টি আরও পরিষ্কার করেছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

সম্প্রতি ক্রিকেট বিষয়ক ওয়েবসাইট ক্রিকবাজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এই কথা আড়াল করেননি বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। বিসিবি বস বলেন বাংলাদেশ দলের ড্রেসিংরুমের পরিবেশ স্বাস্থ্যকর নয়!নাজমুল হাসান

পাপনের ভাষায়, ‘এটি একটি স্বাস্থ্যকর ড্রেসিংরুম নয়, এটি আমি আপনাকে আশ্বস্ত করতে পারি। এই ব্যাপারটা (সাকিব ও তামিমের মধ্যে সম্পর্কে ফাটল), এটা এমন নয় যে আমি এটা সমাধানের চেষ্টা করিনি। আমি তাদের দুজনের সঙ্গেই

কথা বলেছি এবং আমি বুঝতে পেরেছি যে এই মুহূর্তে তাদের মধ্যকার সমস্যাগুলি নিষ্পত্তি করা সহজ নয়। এই আমার পর্যবেক্ষণ… তাদের উভয়কে একটি বার্তা দেওয়া হয়েছে – আমরা জানি না আপনাদের মধ্যে কি চলছে, তবে আপনারা যে

ম্যাচে বা সিরিজ খেলছেন, সেখানে এই সমস্যাগুলি সামনে আসতে পারে না। তারা দুজনেই আশ্বাস দিয়েছিলেন যে এটি খেলার সময় থাকবে না।’মাঠের বাইরে যাই হোক বিসিবি সভাপতির চাওয়া ড্রেসিংরুমে যেনো সব স্বাভাবিক থাকে।

পাপন বলেন, ‘তাদের (সাকিব ও তামিম) মাঠে এবং ড্রেসিংরুমেও কথা বলতে হয়। ড্রেসিংরুমের পরিবেশও খারাপ ছিল তবে কিছুটা উন্নতি হয়েছে। এই সিরিজ থেকে (ইংল্যান্ডের বিপক্ষে আসন্ন হোম সিরিজ) আমি অন্তত ড্রেসিংরুমে

এটি (তাদের সম্পর্ক) পরিবর্তন করতে চাই। তারা বাইরে যা করে তা আমার জন্য চিন্তার বিষয় নয়।’শুধু সাকিব-তামিম সম্পর্কই নয়, দলে গ্রুপিং হয় বলে জানিয়েছেন নাজমুল হাসান পাপন। তার মতে এটিই বর্তমানে বাংলাদেশ ক্রিকেটের

সবচেয়ে বড় সমস্যা।তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ ক্রিকেটের এই মুহূর্তে সবচেয়ে বড় সমস্যা এই গ্রুপিং এবং এটাই বাস্তবতা। আমার আর অন্য কিছুতে সমস্যা নেই। আমি শুধুমাত্র এই গ্রুপিং সম্পর্কে ভীত এবং আমি কিছুদিন আগে এটি সম্পর্কে

জানতে পেরেছি। বিশ্বকাপেও ওদের হোটেলে না থাকার পরও যা দেখেছি শুনেছি… বিশ্বাস করতে পারছি না এটা কিভাবে সম্ভব! সুন্দর ভবিষ্যৎ দেখতে হলে আমাদের এর অবসান ঘটাতে হবে কারণ একটা জিনিস সবারই বোঝা দরকার তা হল গ্রুপিং করার সুযোগ নেই।’