জমে উঠেছে ঢাকা টেস্ট, জয় পেতে বাংলাদেশের দরকার ৬ উইকেট

মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টটি জমে উঠেছে। এখনো টেস্টের পুরো দুইদিন বাকি থাকলেও ফলাফল হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে একদিন হাতে রেখেই। এই টেস্টে জয়

দিয়ে সিরিজ বাঁচাতে বাংলাদেশের প্রয়োজন মাত্র ৬ উইকেট।অন্যদিকে জয় দিয়ে পূর্ণ পয়েন্ট পেতে ভারতের প্রয়োজন আরও ১০০ রানের। উইকেটে আছেন অক্ষর প্যাটেল ২৬ রানে ও জয়দেব উনাদকাট আছেন ৩ রানে।

বৃহস্পতিবার (২২ ডিসেম্বর) মিরপুরের শেরেবাংলায় দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচটি শুরু হয়। ম্যাচের তৃতীয় দিনে বাংলাদেশের দেয় ১৪৫ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে টাইগারদের স্পিন ঘূর্ণিতে পড়ে সফরকারিরা। স্কোরবোর্ডে ৪৫

রান তুলতেই তারা হারিয়ে ফেলে তিন টপঅর্ডারসহ ৪ জনকে। বাংলাদেশের দেয়া টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৩ রানেই অধিনায়ক লোকেশ রাহুলকে হারায় ভারত। সাকিবের বলে উইকেটের পেছনে সোহানের কাছে ক্যাচ

দিয়ে ফেরেন তিনি। ভারতকে দ্বিতীয় ধাক্কা দেন মেহেদী হাসান মিরাজ। দলীয় ১২ রানে মিরাজের বলে চেতেশ্বর পূজারা সোহানের স্ট্যাম্পিংয়ের শিকার হন। দুই ধাক্কা খেয়ে সামাল দেয়ার আগে দলীয় ২৯ রানে আবারও ভারতীয়

শিবিরে আঘাত হানেন মিরাজ। এবার তার শিকার শুভমান গিল। এবারও সোহান স্ট্যাম্পিং করেন গিলকে। গিলের বিদায়ের ৮ রান পর বিরাট কোহলিকে মুমিনুলের ক্যাচ বানিয়ে ম্যাচে তৃতীয় উইকেট শিকার করেন মিরাজ।

এর আগে ১৫৯ রানেই ৭ উইকেট হারিয়েছিল বাংলাদেশ। শঙ্কা জেগেছিল দুইশর নিচে গুটিয়ে যাওয়ার। সেখান থেকে লোয়ার অর্ডারের তাসকিন আহমেদকে নিয়ে লড়াকু এক জুটি গড়েন লিটন দাস। ৭৬ বলে তাদের ৬০

রানের প্রতিরোধ গড়া জুটিটি অবশেষে ভাঙেন মোহাম্মদ সিরাজ। দারুণ এক সুইংয়ে বোল্ড করেন লিটনকে। ৯৮ বলে ৭ বাউন্ডারিতে গড়া লিটনের ইনিংসটি ছিল ৭৩ রানের।লিটন আউট হওয়ার পর আর বেশিদূর এগোয়নি

বাংলাদেশের ইনিংস। শেষ ব্যাটার খালেদ আহমেদ রানআউট হয়েছেন ৪ করে। তাসকিন অপরাজিত ছিলেন ৩১ রানে। ৭০.২ ওভারে বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংস থেমেছে ২৩১ রানে। ফলে মিরপুর টেস্টে ভারতের সামনে জয়ের লক্ষ্য দাঁড়িয়েছে ১৪৫ রানের।প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের করা ২২৭ রানের জবাবে ভারত প্রথম ইনিংসে করে ৩১৪ রান।