গোপন তথ্য ফাঁস ‘সাকিবের টাকায় থুতু মারি বলা ব্যক্তি বঙ্গবাজারের ব্যবসায়ী নন

রা’জ’ধা’নী’র ব’ঙ্গ’বা’জা’রে’র ক্ষ’তি’গ্র’স্ত ব্য’ব’সা’য়ী’দে’র ই’ফা’তা’র জ’ন্য ক্রি’কে’টা’র সা’কি’ব আ’ল হা’সা’নে’র দে’ও’য়া ২০ হা’জা’র টা’কা প্র’ত্যা’খ্যা’ন’কা’রী ব’ঙ্গ’বা’জা’রে’র ব্য’ব’সা’য়ী ন’য় ব’লে জা’নি’য়ে’ছে’ন বাং’লা’দে’শ দো’কা’ন মা’লি’ক স’মি’তি’র স’ভা’প’তি হে’লা’ল উ’দ্দি’ন।

তি’নি ব’লে’ছে’ন, আ’ন্ত’র্জা’তি’ক খ্যা’তি’স’ম্প’ন্ন অ’ল’রা’উ’ন্ডা’র ক্রি’কে’টা’র সা’কি’ব আ’ল হা’সা’ন কা’র কা’ছে ২০ হা’জা’র টা’কা দি’য়ে’ছে’ন, কে সে’ই টা’কা না নি’য়ে ঘৃ’ণা’ভ’রে প্র’ত্যা’খ্যা’ন ক’রে’ছে’ন, আ’ম’রা তা’কে চি’নি না৷ আ’ম’রা চে’ষ্টা ক’রে’ছি তা’কে খুঁ’জে বে’র ক’রা’র।

তি’নি আ’মা’দে’র ব’ঙ্গ’বা’জা’রে’র কো’নো ব্য’ব’সা’য়ী ন’য়।বু’ধ’বা’র (১২ এপ্রিল) ব’ঙ্গ’বা’জা’রে ব্য’ব’সা’য়ী’দে’র চৌ’কি বি’ছি’য়ে অ’স্থা’য়ী কা’র্য’ক্র’ম প’রি’চা’ল’না’র অ’নু’ষ্ঠা’নে তি’নি সাং’বা’দি’ক’দে’র এস’ব ক’থা ব’লে’ন।হে’লা’ল উ’দ্দি’ন ব’লে’ন, সা’কি’ব আ’ল হা’সা’নে’র ম’তো

এ’ক’জ’ন শ্রে’ষ্ঠ ক্রী’ড়া’বিদ’কে আ’ম’রা কো’নো’ভা’বে’ই অ’স’ম্মা’ন ক’র’তে পা’রি না। আ’মা’দে’র য’দি কো’নো ভু’ল’ত্রু’টি’ হ’য়ে থা’কে, সে’জ’ন্য আ’ম’রা’ ক্ষ’মা চা’ই।বাং’লা’দে’শ দো’কা’ন মা’লি’ক স’মি’তি’র স’ভা’প’তি ব’লে’ন, ঢা’কা দ’ক্ষি’ণ সি’টি ক’র’পো’রে’শনে’র মে’য়’র

শেখ ফজলে নূর তাপস প্রমাণ করেছেন, কাজ করলে কাজ করা যায়। মাত্র ২৪ ঘণ্টার নোটিশে বঙ্গবাজারে এই ধ্বংসস্তুপ পরিষ্কার হয়েছে। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র, প্রধানমন্ত্রী সার্বক্ষণিক বঙ্গবাজারের ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের

প্রতি খেয়াল রাখছেন। বিপদ মানুষকে পথ দেখিয়ে দেয়। আমি মনে করি বঙ্গবাজারের ব্যবসায়ীদের বিপদ আজকে পথ দেখিয়ে দেবে।হেলাল উদ্দিন আরও বলেন, সারাদেশের মানুষ এবং দেশের বাইরে থেকেও বঙ্গবাজারের ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের

সহায়তায় গঠিত তহবিলে টাকা দিচ্ছেন।এ সময় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যরিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস, ঢাকা-৮ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, বঙ্গবাজার

কমপ্লেক্স দোকান মালিক সমিতির সভাপতি মো. নাজমুল হুদা ও সাধারণ সম্পাদক মো. জহিরুল ইসলামসহ সমিতির নেতাকর্মী ও সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, বঙ্গবাজারে আগুনে ক্ষতিগ্রস্তদের ইফতারের জন্য

২০ হাজার টাকা অনুদানের ঘোষণা দেন সাকিব আল হাসান।ঘটনার দিন সন্ধ্যায় এ অলরাউন্ডারের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে লেখা হয়, ‘এই অগ্নিকাণ্ডে সবাই তাদের ব্যবসা ও আয়ের মাধ্যম হারিয়েছেন। রমজান মাসে এটি এখন খুব কঠিন সময়

হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমার ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে আগামীকালের ক্ষতিগ্রস্তদের ইফতারের জন্য ২০,০০০ টাকা অনুদান প্রদান করব। ’সাকিবের এই ঘোষণায় ক্ষোভ ঝারেন বঙ্গবাজারে ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে কেউ কেউ। তাদের মধ্যে থেকে

একজন সাংবাদিকদের বলেন, ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে আজ আমরা রাস্তার ফকির। গত পরশুও ২০ হাজার টাকা আমাদের হাতের ময়লা ছিল। সাকিবের টাকায় আমরা থুতু মারি, থু।ওই ব্যক্তি আরও বলেন, আপনারা সাংবাদিকদের মাধ্যমে

বলতে চাই, উনার (সাকিব আল হাসান) যদি লাগে আমরা ২০ হাজার টাকা আরও দেব। উনি ৪০ হাজার টাকা দিয়ে ইফতার করুক।সাকিব অবশ্য বঙ্গবাজারে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের জন্য তার মতো অন্যদেরও এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন। পরবর্তী ইফতারের খরচ বহনের জন্য পেসার তাসকিন আহমেদকে আহ্বান জানান তিনি।