‘গার্ড অব অনার’ পেলেন আলিম দার, সম্মান জানাল বিসিবিও

আ’ইসি’সি’র এ’লি’ট প্যা’নে’লে আ’ম্পা’য়া’র হি’সে’বে আ’লি’ম দা’রে’র দী’র্ঘ যা’ত্রা’র স’মা’প্তি ঘ’ট’লো। বাং’লা’দে’শ ও আ’য়া’র’ল্যা’ন্ডে’র ম’ধ্য’কার টে’স্ট দি’য়ে এ’লি’ট প্যা’নে’লে’র আ’ম্পা’য়া’র হি’সে’বে শে’ষ ম্যা’চ পরি’চা’ল’না ক’রে’ন পা’কি’স্তা’নে’র এ অ’ভি’জ্ঞ আ’ম্পা’য়া’র।

ম্যা’চ শে’ষে শু’ক্র’বা’র (৭ এপ্রিল) মি’র’পু’রে দু’ই দ’লে’র প’ক্ষ থে’কে গা’র্ড অ’ব অ’না’র প্র’দা’ন ক’রা হ’য় আ’লি’ম দা’র’কে। এ’ক’ই স’ঙ্গে পুর’স্কা’র বি’ত’র’ণী ম’ঞ্চে বি’সি’বি থে’কে পে’য়ে’ছে’ন আ’কর্ষ’ণী’য় ক্রে’স্ট’ও।আই’সি’সি’র এ’লি’ট প্যা’নে’ল ছা’ড়’লে’ও আ’ন্ত’র্জা’তি’ক আ”ম্পা’য়া’র

হিসেবে দায়িত্ব চালিয়ে যেতে চান তিনি। এ ক্ষেত্রে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড চাইলে তিনি আম্পায়ারিং করতে পারবেন। ২০০০ সালে আন্তর্জাতিক ম্যাচ পরিচালনা শুরু করা আলিম দার ২০০২ সালে আইসিসির ইন্টারন্যাশনাল প্যানেলে যুক্ত হন। এর দুই

বছর পর তাকে আম্পায়ারদের এলিট প্যানেলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়।দীর্ঘ আম্পায়ারিং ক্যারিয়ারে ২০০৬ আইসিসি ট্রফি ফাইনাল, ২০০৭ ও ২০১১ ওয়ানডে বিশ্বকাপ ফাইনাল এবং ২০১০ ও ২০১২ টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ফাইনাল পরিচালনা করেন। এর মধ্যে ২০০৯ থেকে ২০১১ পর্যন্ত টানা তিন বছর আইসিসির বর্ষসেরা আম্পায়ার (ডেভিড শেফার্ড ট্রফি) নির্বাচিত হন আলিম দার।

আইসিসির এক বিবৃতিতে আলিম দার বলেন, এলিট প্যানেলে এতটা সময় থাকার পর এখন সরে যাওয়ার সময় এসেছে। এতে করে অন্য কেউ সুযোগ পাবে। যদিও আন্তর্জাতিক আম্পায়ার হিসেবে দায়িত্ব চালিয়ে যেতে চাই।