একের পর এক বিতর্ক, সাকিবকে নিয়ে বিসিবির বিস্ফরোক মন্তব্য!

মাঠের বাইরের সাকিব আল হাসানকে নিয়ে বিতর্কের শেষ নেই। একের পর এক বিতর্কের জন্ম দিয়েই চলেছেন তিনি। দিন কয়েক আগে দুবাই পলাতক আসামীর সোনার দোকান উদ্বোধনের ঘটনায় দেশে তোলপাড় পড়ে গিয়েছিল। তবে

সেসব সমালোচনা-বিতর্ক একপাশে রেখে মাঠের ক্রিকেটে সাকিব অনন্য। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে ফিরেই ব্যাট হাতে করেছেন ইনিংসে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ৯৩ রান। বল হাতেও প্রতিপক্ষ শিবিরে প্রথম আঘাত হানেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার।

এদিকে, সাকিবের সেই দুবাই কান্ড নিয়ে এবার মুখ খুলেছে বিসিবি। শনিবার (১৮ মার্চ) সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রথম ওয়ানডে চলাকালীন গণমাধ্যমের মুখোমুখি হন ক্রিকেট অপারেশন্সের চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস। তিনি

সাকিবের দুবাই ইস্যু নিয়ে এখনই কথা বলতে চাচ্ছিলেন না। তবে গণমাধ্যমের পীড়াপীড়িতে জালাল বলেন, ‘এটা নিয়ে এই সিরিজের মাঝখানে আলাপ করতে চাচ্ছিলাম না। কিন্তু যেহেতু আপনি (সাংবাদিক) প্রশ্ন তুলেছেন, আমি বলছি। পুরো

ব্যাপারটা কিন্তু আমরা মিডিয়ায় দেখিছি, শুনেছি। যে ঘটনাটা ঘটেছে খুবই সংক্ষিপ্ত সময়ের মধ্যে। বলতে গেলে একদিনের ব্যবধানে এটা হয়েছে।’জালাল যোগ করেন, ‘একটা সিরিজ শেষ হলো, আরেকটা সিরিজ যখন শুরু হলো; এর ফাঁকেই

এটা হয়েছে। যা কিছু ঘটেছে, আমরা যা কিছু দেখেছি, মিডিয়ার মাধ্যমে দেখেছি। বিস্তারিত জানার বা যারা এটার মধ্যে কনসার্ন আছেন তাদের জিজ্ঞেস করার এখনো সুযোগ হয়নি। সিরিজ শেষ হোক, অবশ্যই এই ব্যাপারে আমরা জানতে চাইবো।

কী ঘটনা ঘটেছে, কী না ঘটেছে, কার ইনভলভমেন্ট কী, এগুলো আমাদের ব্যাপার না। আমরা বোর্ড থেকে দেখবো আমরা কতটুকু এখানে কনসার্ন। সে ব্যাপারটাই বেশি গুরুত্ব দেবো। ’
বিসিবি থেকে আরো ভালোভাবে এসব খেয়াল করা দরকার কি

না এমন প্রশ্নে জালাল বলেন, ‘এখানে ক্রিকেট অপারেশন্স থেকে আমরা দেখবো কেন্দ্রীয় চুক্তিতে কী আছে তার। সেটা ভাঙা হয়েছে কি না। বাণিজ্যিক চুক্তি বোর্ডের সঙ্গে ক্ল্যাশ করে কি না। যদি তেমন কিছু থাকে ডিসিপ্লিনারিতে আমরা রেফার করতে

পারি। এজন্য বললাম কোনো কিছু না জেনে, সবার থেকে জিজ্ঞেস না করে, ব্যাপারটা পুরোপুরি তদন্ত না করে মন্তব্য করা ঠিক হবে না।’জালাল আরও বলেন, ‘এটা নিয়ে যদি হইচই বেশি করি কিছু না জেনে। এটা তার পারফরম্যান্সেও তো একটা

সমস্যা হবে। আমার মনে হয় আগে ব্যাপারটা জানি আমরা সবাই। সবারই এখানে সমর্থন দরকার। যদি সে না জেনে থাকে, যেটা বললেন, তাহলে তাকে পরামর্শ দেওয়া যায় কি না, উপদেশ দেওয়া যায় কি না, আমাদের কোনো নির্দেশনা আছে

কি না, সেটা নিয়ে আমরা আলাপ আলোচনা করতে পারি।’সাকিবকে দেশের সম্পদ দাবি করে জালাল বলেন, ‘সাকিব শুধু আমাদের বিসিবির সম্পদ না, দেশের সম্পদ। তার দিকে লুক আফটার করা আমাদের দায়িত্ব।’