ইংল্যান্ডে সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ তবে প্রতিপক্ষ ইংল্যান্ড নয়

সাত দল ইতোমধ্যেই জায়গা নিশ্চিত করে ফেলেছে। তালিকায় আছে বাংলাদেশও। অষ্টম জায়গাটির জন্য মরিয়া আয়ারল্যান্ড। সে লক্ষ্যে মে মাসে বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে মাঠে নামবে আইরিশরা।সুপার লিগে জায়গা শক্ত

করতে বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ থেকে পূর্ণ ৩০ পয়েন্টের দিকে তাকিয়ে আইরিশরা। সূচি অনুযায়ী সিরিজটি হওয়ার কথা আয়ারল্যান্ডের মাঠে। তবে এমন গুরুত্বপূর্ণ সিরিজ নিজেদের মাঠে না খেলে ইংল্যান্ডের মাঠে খেলার ইচ্ছা প্রকাশ

করেছে দলটি। বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে এমনটাই জানিয়েছে ইএসপিএনক্রিকইনফো।মে মাসে অনুষ্ঠিতব্য বাংলাদেশ-আয়ারল্যান্ড সিরিজের সময় বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। আর সেই অনাকাঙ্ক্ষিত বৃষ্টির কারণে সুপার লিগের কোনো

পয়েন্ট হারাতে নারাজ আয়ারল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড। ঠিক সে কারণেই সিরিজটি ইংল্যান্ডে আয়োজনের তৎপরতা চালাচ্ছে আইরিশরা।ইংল্যান্ডেও যে বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই এমনটা নয়। তবে আইরিশ বোর্ডের বিশ্বাস, ইংল্যান্ডে খেললেই ম্যাচগুলোতে

ফলাফল পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি। তাই ম্যাচ তিনটি কেলমসফোর্ডে খেলতে চায় তারা। এজন্য তারা আলোচনাও শুরু কর দিয়েছে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে।২১ ম্যাচে ৬৮ পয়েন্ট নিয়ে সুপার লিগে ১১ তম অবস্থানে আছে

আয়ারল্যান্ড। সমান ম্যাচে ৭৭ পয়েন্ট নিয়ে ১০-এ শ্রীলঙ্কা, ১৯ ম্যাচে ৭৮ পয়েন্ট নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা ৯-এ এবং ২৪ ম্যাচে ৮৮ পয়েন্ট নিয়ে আটে আছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের আর কোনো ম্যাচ বাকি নেই সুপার লিগে।

সম্প্রতি ইংল্যান্ড সিরিজ শেষে ৭৯ পয়েন্ট ছিল দক্ষিণ আফ্রিকার। কিন্তু শেষ ওয়ানডেতে স্লো-ওভার রেটের কারণে এক পয়েন্ট কেটে নেওয়া হয় তাদের। তাতে নতুন সম্ভাবনার দুয়ার খুলেছে আয়ারল্যান্ডের জন্য। কারণ সুপার লিগে দক্ষিণ

আফ্রিকার শেষ দুটি ম্যাচ নেদারল্যান্ডসের সঙ্গে।সেই সিরিজ ২-০ ব্যবধানে জিতলে তাদের পয়েন্ট দাঁড়াবে ৯৮। অন্যদিকে আয়ারল্যান্ড যদি বাংলাদেশকে ৩-০ ব্যবধানে হারায় তাহলে তাদেরও ৯৮ পয়েন্ট হবে। তখন রান রেটের ব্যবধানে যে এগিয়ে

থাকবে সেই দলই সরাসরি বিশ্বকাপ খেলার সুযোগ পাবে। বর্তমানে রানরেটে দক্ষিণ আফ্রিকার (-০.৪১০) চেয়ে এগিয়ে আছে আয়ারল্যান্ড (-০.৩৮২)।এই আলোচনায় প্রাসঙ্গিক শ্রীলঙ্কাও। সুপার লিগের শেষ সিরিজটি তারা খেলবে নিউজিল্যান্ডের

মাটিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। সিরিজটি ৩-০ ব্যবধানে জিতলে বিশ্বকাপে জায়গা পাকা করবে লঙ্কানরা। কিন্তু ২-০ ব্যবধানে জিতলে তাদের পয়েন্ট হবে ৯৭, তখন লড়াইটা হবে আয়ারল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যে। কেননা এক পয়েন্ট এগিয়ে থাকবে এই দুই দল। যদি দক্ষিণ আফ্রিকা, আয়ারল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কা নিজ নিজ সিরিজে ধবলধোলাই হয়, তাহলে কপাল খুলে যাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের।