ইংল্যান্ডের বিপক্ষে হারের পর অধিনায়ক তামিমকে নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য মাশরাফির

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে লড়াই করে হেরেছে বাংলাদেশ। স্বল্প পুঁজি নিয়েও প্রায় জেতারমতো অবস্থা তৈরি করে ফেলে।তবে ডেভিড মালানের অতিমানবীয় এক ইনিংসে হারতে হয়েছে ম্যাচ। তামিম ইকবাল

এদিন দুর্দান্ত অধিনায়কত্ব করেছেন। প্রশংসা কুড়িয়েছে দেশের অন্যতম সফল অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার।মিরপুরের উইকেট গতকাল নিজের মতোই আচরণ করেছে। মন্থর ও টার্নিং ছিল বেশ, আগে ব্যাট

করে বাংলাদেশ করেছে মাত্র ২০৯। উইকেট কঠিন হলেও ২৫০ করা যেতো অনায়েসেই। তবে এই পুঁজিতেও সেরা লড়াইটা করেছে টাইগাররা।১৬১ রানেই ৭ উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। কিন্তু এক প্রান্ত আগলে রেখে দুর্দান্ত

সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে দল জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন মালান। বিশেষ করে রাতে বল করতে হয়েছে বলে টাইগার স্পিনাররা খানিক পিছিয়ে পড়ে। এমনটাই মনে করেন মাশরাফি।নিজের ব্যক্তিগত ফেসবুক একাউন্ট থেকে দেওয়া

পোস্টে তিনি লিখেন, ‘বাংলাদেশ ২০-৩০ রান কম করেছে, তবে যে উইকেটে খেলেছে তাতে এ রানও কম না।সমস্যাটা হল সন্ধ্যা হওয়ার পরপরই কুয়াশা পড়া, যদিও বেশি না। তবে স্পিনারদের কার্যকারিতা কময়াতে

যতটুকু প্রয়োজন ততটুকুতেই সম্যাচ ইংল্যান্ডের হাতে চলে গেছে। বল যেভাবে স্লো ও ব্রেক হচ্ছিল সন্ধ্যা না হলে ইংল্যান্ডের সামলানো অসম্ভব হয়ে যেত নিশ্চিত।’তাইজুল ইসলাম ছিলেন বাংলাদেশের সফল বোলার,

নিয়েছেন ৩ উইকেট। প্রথম ওভারে তামিম অবশ্য বল তুলে দেন সাকিব আল হাসানের হাতে। প্রথম ওভারেই আসে সাফল্য।এরপর দ্রুত তাইজুলকে ডেকে নেন, পেয়েছেন জোড়া সাফল্য। সময় বুঝে তাইজুলকে

সরিয়ে তাসকিন আহমেদকে ডেকে এনে ফিরিয়েছে প্রতিপক্ষ অধিনায়ক জস বাটলারকে। তামিমের এমন অধিনায়কত্ব মনে ধরেছে মাশরাফির।তিনি লিখেন, ‘ক্রিকেট সবসময় ক্যাপ্টেন গেইম তা তাইজুল প্রমাণ করেছে।

তামিম অসাধারণ ফ্লোতে ছিল আজ। বিশেষ করে সাকিব উইকেট পাবার পরও তিন ওভার পর ব্রেক দিয়ে তাইজুলকে আনা।তাইজুল দুই উইকেট নেওয়ার পর তাকে ব্রেক দিয়ে তাসকিনকে আনা। শুধু তাই না ১৭ ওভারের

পরও বাটলারের জন্য স্লিপ রাখা…এক কথায় অসাধারন।’শিশিরের কথা চিন্তা করে দিবা রাত্রির ম্যাচ হলেও খেলা শুরু হচ্ছে দুপুর ১২ টায়। কিন্তু শিশিরের কারণেই প্রথম ম্যাচে কঠিন হয়েছে বাংলাদেশ স্পিনারদের কাজ।

এ প্রসঙ্গে মাশরাফি যোগ করেন, ‘ডিউ এর চিন্তা করে খেলা ১২ টায় আনা, সেই ডিউ-ই অবশ্য আমাদের জন্য কাল হল। তবে মালান সম্ভবত তার জীবনের সেরা ওয়ানডে ইনিংস খেললো। অভিনন্দন ইংল্যান্ডকে, তবে আমরাও ভালো খেলেছি বাংলাদেশ।’