ইংল্যান্ডকে হোয়াইটওয়াশ করার পরের দিনই মিরপুরে ঝড় তুললো তৌহিদ হৃদয়

সময়টা দারুণ কাটছে তৌহিদ হৃদয়ের। গতকাল ইংল্যান্ডের ঐতিহাসিক সিরিজ জয় এবং হোয়াইটওয়াশের পরদিনই ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে ব্যাট হাতে ঝলসে উঠলেন এই ডানহাতি। ২০২০ সালে বাংলাদেশের যুব বিশ্বকাপজয়ী দলের অন্যতম

এই সদস্য শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের হয়ে খেললেন ম্যাচজয়ী ঝোড়ো এক ইনিংস।মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে বুধবার প্রিমিয়ার লিগের প্রথম রাউন্ডের ম্যাচে ঢাকা লেপার্ডসকে হারিয়ে শুভ সূচনা করে শেখ জামাল।

বৃষ্টি আইনে দলটির ৮ উইকেটে জয়ের ম্যাচে ৩০ বলে ৫৪ রানের ইনিংস খেলেছেন হৃদয়। সঙ্গে নিয়েছেন ২ ক্যাচ। সুবাদে ম্যাচের সেরাও তিনি।বিপিএলে দারুণ পারফরম্যান্স দেখিয়ে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডে জায়গা করে

নিয়েছিলেন হৃদয়। তার প্রথম আন্তর্জাতিক সিরিজে বাংলাদেশ দেখিয়েছে অভাবনীয় সাফল্য। বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডকে তিন ম্যাচের সিরিজে দিয়েছে হোয়াইটওয়াশের স্বাদ। তিন ম্যাচেই একাদশে ছিলেন হৃদয়।শেখ জামাল ও ঢাকা লেপার্ডসের

মধ্যকার ম্যাচটি বৃষ্টির জন্য ৪২ ওভারে নেমে এসেছিল। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ঢাকা লেপার্ডস ৩৯.৩ ওভারে ১৬৯ রানে গুটিয়ে যায়। দলটির পক্ষে সর্বোচ্চ ৬০ বলে ৪১ রান করেন পিনাক ঘোষ। ৪৯ বলে ৪০ রান করেন মনির খান।

শেখ জামালের পক্ষে সর্বাধিক ৩টি করে উইকেট নেন মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী ও পারভেজ রসুল।লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে সাইফ হাসানকে নিয়ে দলকে দারুণ শুরু এনে দেন সৈতক আলী। উদ্বোধনী জুটিতে ৪৯ রান যোগ করেন তারা। সাইফ

যদিও ২৫ বলে ৮ রানে থামেন। তবে সৈকত লিস্ট ‘এ’ ক্যারিয়ারে খেলেন ২৪তম ফিফটি। ৫৬ বলে ৯ চারে ৬৩ রান করেন তিনি।সৈকত ২২তম ওভারে সালাউদ্দিন শাকিলের শিকার হয়ে ফেরার পর ফজলে মাহমুদ ও তৌহিদ হৃদয়

বাকি কাজ সারেন। ফজলে মাহমুদ ৭৯ বলে ১টি করে চার ও ছক্কায় অপরাজিত ৪১ রান করেন। তৌহিদ হৃদয়ের ৩০ বলে ৫৪ রানের ইনিংসে ছিল ৭ চার ও ২ ছক্কা। লিস্ট ‘এ’ ক্যারিয়ারে এটি তার ১৩তম ফিফটি।