ক্রিকেটবিশ্বকে তাক লাগিয়ে, ৬ বলে ৬ উইকেট নিয়ে বিশ্বকে অবাক করলেন নিউজিল্যান্ডের এই ক্রিকেটার

সাম্প্রতিক ক্রিকেটে অসম্ভব বলে কিছু নেই। দিনের-পর-দিন তৈরি হচ্ছে এক ধরনের রেকর্ড। রেকর্ড ভাঙা রেকর্ড গড়া নতুন কিছু না। এইসব রেকর্ডের মধ্যে কিছু কিছু রেকর্ড শ্রেষ্ঠ রেকর্ড হয়ে বিবেচিত হয়। তবে এবার এমন কিছু দেখলো

ক্রিকেট বিশ্ব তা হয়তো আগে কখনো দেখেনি কেউ।ক্রিকেট বিশ্ব দেখেছে এক ওভারে ছয় ছক্কা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটসহ বিভিন্ন জায়গায়। তবে এখন পর্যন্ত এক ওভারে ছয়টি উইকেট কখনোই দেখা যায় না। স্কুল ক্রিকেটে সে দুর্লভ অর্জন

করে নিলেন নিউজিল্যান্ডের ১৩ বছর বয়সী এক কিশোর ক্রিকেটার। নিউজিল্যান্ডের স্কুল ক্রিকেটে এই অনন্য নজির স্থাপন করলেন পালমারস্টোন নর্থ বয়েজ হাইস্কুলের পেস বোলার ম্যাট রোয়ি।নিউজিল্যান্ডের জনপ্রিয় গণমাধ্যম ‘স্টাফ’

জানিয়েছে, দেশটির অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ক্যাম্পে ডাক পাওয়া রোয়ি গত বুধবারের (২২ মার্চ) একটি ম্যাচে ছয় ওভার বোলিং করে মাত্র ১২ রানে নেন ৯ উইকেট!এর মধ্যে নিজের পঞ্চম ওভারেই ছয় বলে ছয় উইকেট নেন রোয়ি। তাওরাঙ্গায় সুপার

এইট টুর্নামেন্টের ফাইনালে ওঠার ম্যাচে পালমারস্টোন নর্থ বয়েজ হাইস্কুলের হয়ে এই কীর্তি গড়েন রোয়ি।নিজের পঞ্চম ওভারের প্রথম বলে দ্বিতীয় স্লিপে ক্যাচ, পরের চারটি সরাসরি বোল্ড এবং শেষ বলে এলবিডব্লু করেন এই কিশোর পেসার। তার

এমন বোলিংয়ে প্রতিপক্ষ রোটোরোয়া হাইস্কুল করে মাত্র ২৬ রান! এই রান ২.১ ওভারেই তাড়া করে রোয়ির দল পালমারস্টোন নর্থ বয়েজ।দারুণ অর্জনের পর রোয়ি বলেন, ‘আম্পায়ারের সঙ্গে কথা হচ্ছিল। তিনি বলছিলেন,

আমাদের সময় খুব বেশি হ্যাটট্রিক দেখিনি। ভাবলাম, তাহলে আম্পায়ারের জন্য চেষ্টা করে দেখা যায়। সেটা ছিল কেবল শুরু।’‘চতুর্থ উইকেট পেয়ে যাওয়ার পর মনে হয়েছে, বিষয়টি তাহলে সিরিয়াস হয়ে যাচ্ছে। ছয় নম্বর উইকেটের পর

বিশ্বাস হচ্ছিল না। সতীর্থরা আমাকে ঘিরে ধরেছিল। সবকিছু পাগলাটে মনে হচ্ছিল। সতীর্থরা আমার চেয়ে বেশি উন্মাদনা দেখিয়েছে।’ক্রিকেটীয় পরিভাষায় এক ওভারে ছয় উইকেটের ঘটনাকে বলা হয় ‘পারফেক্ট ওভার’। এর আগে ২০১৭

সালের ২১ জানুয়ারি অস্ট্রেলিয়ার বালারাত ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের টুর্নামেন্টে ইস্ট বালারাত ক্রিকেট দলের বিপক্ষে এক ওভারে ছয়টি উইকেট নিয়েছিলেন অ্যালেড ক্যারি।গোল্ডেন পয়েন্ট ক্রিকেট ক্লাবের এই বোলার সেই ওভারটিতে দুটি

ক্যাচ, একটি এলবিডব্লু এবং বাকি তিনটি বলে বোল্ড আউট করেন প্রতিপক্ষ দলকে। এবার ছয় বছর পর তার পাশে যুক্ত হলো রোয়ির নাম।আন্তর্জাতিক বা ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটে এমন ঘটনা একেবারেই দেখা যায়নি। অসংখ্য হ্যাটট্রিকের

পাশাপাশি এক ওভারে সর্বোচ্চ চারটি উইকেট পাওয়ার ঘটনা দেখা গেছে। টেস্টে এর আগে এমন রেকর্ড গড়েন মরিস অ্যালম, ক্রেন ক্রানস্টোন, ফ্রেড টিটমাস, ক্রিস ওল্ড, অ্যান্ড্রু ক্যাডিক ও ওয়াসিম আকরাম।

আর আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতেও এক ওভারে ৪ উইকেট নেওয়ার রেকর্ড আছে শ্রীলঙ্কার সাবেক পেসার লাসিথ মালিঙ্গার। দুই বছর পর ২০২১ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে এক ওভারে চার উইকেট নিয়েছিলেন আয়ারল্যান্ডের পেসার কার্টিস ক্যাম্ফার।